মেইন ম্যেনু

পর্তুগালের ‘গণতন্ত্রের জনক’ সোয়ারেস আর নেই

পর্তুগালের গণতন্ত্রের জনক খ্যাত মারিও সোয়ারেস আর নেই।

রাজধানী লিসবনে একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৯২ বছর।

১৯৭৬ থেকে ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত পর্তুগালের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন সোয়ারেস। এ সময় স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে কারনেশান বিপ্লব হয়। যার হাত ধরে পতন হয় কয়েক দশকের ডানপন্থি স্বৈরশাসনের।

মারিও সোয়ারেস একজন সমাজবাদী নেতা। ১৯৮০-এর দশকের শুরুতে তিনি দ্বিতীয় দফায় প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৬ সাল থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত তিনি দেশটির গণতান্ত্রিক প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার কারণে গত মাসে হাসপাতালে ভর্তি হন মারিও সোয়ারেস। তার অবস্থা কিছুটা উন্নতির দিকে যাচ্ছিল। তবে হঠাৎ কোমায় চলে যান এবং কোমা থেকে আর ফেরেননি। শেষ পর্যন্ত হাসপাতাল জানায়নি, ঠিক কী কারণে তিনি মারা গেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় কমিউনিজমে ঝুঁকে পড়া সোয়ারেস পরে গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন। তবে মনেপ্রাণে তিনি ছিলেন সমাজবাদী গণতন্ত্রকামী। অন্টোনিও ডি অলিভেইরা সালাজারের আমলে ১২ বার কারা ভোগ করতে হয় তাকে।

সোয়ারেসের মৃত্যুতে পর্তুগালে সোমবার থেকে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন।