মেইন ম্যেনু

পর্নো সিনেমায় অভিনয় করেছেন ট্রাম্প!

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে সমালোচনার মুখে পড়া নতুন কিছু নয়। এবার মার্কিন এই ধনকুবেরের বিরুদ্ধে পর্নো সিনেমায় অভিনয়ের অভিযোগ উঠেছে।

২০০০ সালে ভিডিও সেন্টারফোল্ড শিরোনামের একটি পর্নো সিনেমায় ট্রাম্পকে দেখা যায়। তবে কোন যৌনতার দৃশ্যে তাকে দেখা যায়নি। প্রাপ্তবয়স্কদের ম্যাগাজিন প্লেবয় সিনেমাটি প্রযোজনা করেছিল; সেখানে স্বল্পবসনা একাধিক প্লেবয় মডেলের সঙ্গে দেখা যায় রিপাবলিকান দলীয় এই প্রেসিডেন্ট প্রার্থীকে।

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য ইন্ডিপেনডেন্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিনেমার একটি দৃশ্যে শ্যাম্পেনের বোতল খুলতে দেখা যায় ট্রাম্পকে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের একটি শহরের একটি দোকান থেকে ওই ভিডিও সংগ্রহ করেছে বাজফিড। এতে দেখা যায়, নগ্ন নারীরা নাচছেন ও একে অপরকে স্পর্শ করছেন। শুধু তাই নয়, নগ্ন নারীদেরকে বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গিতে দাঁড়াতেও দেখা যায়।

এর আগে, মার্কিন এই ধনকুবেরের স্ত্রীর বিরুদ্ধেও খোলামেলা দৃশ্যে একটি সাময়িকীর প্রচ্ছদে দেখা যায়। সে সময়ও এ নিয়ে বেশ বিতর্কের মুখে পড়েন ট্রাম্প।

সাবেক মিস ইউনিভার্স অ্যালিসিয়া মাশাদাকে জড়িয়ে সম্প্রতি এক টুইট করেন ট্রাম্প। টুইটে ট্রাম্প অ্যালিসিয়ার অতীত ইতিহাস ও সেক্স টেপ খতিয়ে দেখার আহ্বান জানান। টুইটে হিলারিকে জড়িয়েও বক্তব্য দেন ট্রাম্প। এর জবাবে অ্যালিশিয়া অভিযোগ করেন, নারীদের কলঙ্কিত করতে চাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ জন্যই তিনি বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য দিচ্ছেন।

অ্যালিসিয়াকে একসময় ‘মিস পিগি’ বলে অপমান করেছিলেন ট্রাম্প। এ জন্য তাকে এখনো সমালোচার মুখে পড়তে হয়। ট্রাম্পের ওই টুইটের সমালোচনা করেছেন ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনও।