মেইন ম্যেনু

‘পর্যটনে পোশাক খাত থেকে বেশি আয় সম্ভব’

বাংলাদেশের পর্যটন খাত থেকে তৈরি পোশাক খাতের চেয়েও বেশি আয় করা সম্ভব। পর্যটন বিশেজ্ঞদের মতে, প্রতি একজন বিদেশী পর্যটকের বিপরীতে ১১ জনের কর্মসংস্থান হয়।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সম্মেলনকক্ষে জেলা প্রশাসক সম্মেলনে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় বিষয়ক অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

মন্ত্রণালয় থেকে গণমাধ্যমে বার্তা পাঠিয়ে তথ্যটি বৃহস্পতিবার বিকেলে জানানো হয়।

রাশেদ খান মেনন জেলা প্রশাসকদের উদ্দেশে বলেন, “এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকনির্দেশনায় ২০১৬ সালকে পর্যটনবর্ষ হিসেবে ঘোষণার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আপনারা (জেলা প্রশাসকরা) স্ব স্ব এলাকায় পর্যটন ‘প্রোডাক্ট’ চিহ্নিত করে পর্যটন কার্যক্রমকে আরও বেগবান করুন।”

জেলা প্রশাসকদের মাঠপর্যায়ে সরকারের প্রশাসনের অন্যতম চালিকাশক্তি উল্লেখ করে বিমানমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সরকারি সেবা বিকাশের দীর্ঘ ইতিহাস জড়িয়ে আছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার পর পরই যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশের পুনর্গঠন কাজ শুরু করেন। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় একটি জনগুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়। সরকার দেশের গুরুত্বপূর্ণ অন্য সেক্টরের ন্যায় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন খাতকে যুগোপযোগী করে গড়ে তোলার উদ্যোগ গ্রহণ করছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণের মাধ্যমে এ খাতকে বিনিয়োগের ট্রাস্ট সেক্টরে পরিণত করার পথে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি, বিমান পরিবহন খাতেও আমরা এরই মধ্যে বহুদূর এগিয়েছি। বিমানবহরে নতুন এয়ারক্রাফট সংযোজনের পাশাপাশি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স বহুল প্রত্যাশিত অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট চালু করেছে। মংলায় খানজাহান আলী বিমানবন্দরের নির্মাণকাজ শুরু হচ্ছে। আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন আধুনিক বিমানবন্দর হিসেবে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। যাত্রীসেবা বৃদ্ধির লক্ষ্যে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল ভবন নির্মাণ এবং কক্সবাজার বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হিসেবে গড়ে তোলার কার্যক্রম চলছে। সৈয়দপুর বিমানবন্দরকে আঞ্চলিক বিমানবন্দর হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ আমরা গ্রহণ করেছি।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক, প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব খোরশেদ আলম চৌধুরী স্ব স্ব মন্ত্রণালয়ের বিষয়াদি নিয়ে বক্তৃতা করেন।