মেইন ম্যেনু

পলিথিনের বস্তায় চাল বিক্রি বন্ধ

পাটের ব্যাগ ও বস্তা জনপ্রিয় করতে সচেতনামূলক নানা কর্মসূচি চলমান রয়েছে। একই সঙ্গে পলিথিনের বস্তা ব্যবহার বন্ধে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী মুহা: ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক।

রোববার (১৭ জুলাই) বিকেলে জাতীয় সংসদে বাজেট অধিবেশনে লক্ষীপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মো. আবদুল্লাহ’র এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এই তথ্য জানান।

মন্ত্রী বলেন, দেশে ধান, চালসহ বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী পরিবহনের প্লাস্টিক বা পলিথিন ব্যাগের পরিবর্তে পাটের তৈরি ব্যাগ ব্যবহারের জন্য সরকার পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন ২০১০ ও পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার বিধিমালা ২০১৩ প্রণয়ন করা হয়েছে। এই আইনের অধীনে পাটের ব্যাগ ব্যবহার নিশ্চিত করতে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের প্রতক্ষ তত্ত্ববধানে চাতাল মিল মালিক, ব্যবসায়ী ও প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের আইনটি সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে সভা ও সেমিনারসহ ব্যাপক প্রচারণা চালানো হচ্ছে। এছাড়া আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে মামলা পরিচালনার মাধ্যমে অর্থদণ্ড ও কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। এর ফলে বাজারে পলিথিনের বস্তায় চাল ক্রয়-বিক্রয় বন্ধ হয়েছে এবং শতভাগ পাটের বস্তা ব্যবহার নিশ্চিত হয়েছে।

চট্টগ্রাম-১১ আসনের সংসদ সদস্য এম আব্দুল লতিফ এর এক প্রশ্নের জবাবে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী বলেন, গত বছওে বিদেশে পাট রপ্তনির লক্ষ্যে বিশ্বেও কোন দেশের সাথে কোনো চুক্তি না হলেও বাংলাদেশ হতে পাট আমদানিকারক দেশ সমূহ স্থানীয় রপ্তানিকারকদের মাধ্যমে তাদের চাহিদা মাফিক পাট আমদানি করে করে থাকে।