মেইন ম্যেনু

পাঁচ টাকার নতুন নোট ছাপানোর উদ্যোগ

পাঁচ টাকা মূল্যমানের ব্যাংক নোট কারেন্সি নোটে রূপান্তরিত হওয়ায় নতুন করে নোট ছাপানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে। নতুন নোটে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের স্বাক্ষরের পরিবর্তে অর্থ সচিবের স্বাক্ষর থাকবে। এ ছাড়াও নতুন নোটে বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হবে।

সূত্র জানায়, সম্প্রতি জাতীয় সংসদে বাংলাদেশ কয়েনেজ (অ্যামেন্ডমেন্ট) অ্যাক্ট, ২০১৫ পাস হয়েছে। গত ২১ নভেম্বর রাষ্ট্রপতি সম্মতি দেওয়ার পর ওই দিনই তা গেজেটে প্রকাশ হয়। এর ফলে বর্তমানে প্রচলিত ৫ (পাঁচ) টাকার মুদ্রা লিগ্যাল টেন্ডারে রূপান্তরিত হয়েছে। পাঁচ টাকার ব্যাংক নোটকে কারেন্সি নোটে রূপান্তরের জন্য বর্তমানে প্রচলিত পাঁচ টাকা মূল্যমানের নোটে বেশ কিছু পরিবর্তন আনতে হবে।

সূত্র জানায়, পাঁচ টাকা মূল্যমানের লিগ্যাল টেন্ডার থেকে কারেন্সি নোটে রূপান্তরিত করতে হলে মোট ৯টি পরিবর্তন আনতে হবে। এর মধ্যে নোটের সামনের পৃষ্ঠায় ‘বাংলাদেশ ব্যাংক’ লেখার জায়গায় ‘গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার’ লেখাটি সংযোজন করতে হবে। ‘চাহিবামাত্র ইহার বাহককে দিতে বাধ্য থাকিবে’ লেখাটি থাকবে না। বাংলাদেশ গভর্নরের স্বাক্ষর ও পদবির জায়গায় সিনিয়র সচিবের স্বাক্ষর ও পদবি হবে। ‘গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের দায়িত্বে প্রবর্তিত’ লেখাটি থাকবে না। নোটের জলছাপ হিসেবে ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের মনোগ্রাম’ এর পরিবর্তে জাতীয় মনোগ্রাম থাকবে। নোটের সামনে বাম পাশে ‘বাংলাদেশ ব্যাংক’ লেখাটি থাকবে না।

এ ছাড়া নোটের পেছনে নিচের দিকে ‘বাংলাদেশ ব্যাংক’ লেখাটি থাকবে না। ওপরে ‘বাংলাদেশ ব্যাংক’ লেখার জায়গায় ‘গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার’ লেখাটি সংযোজন করা হবে।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এরই মধ্যে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিয়েছে। নতুন নোটে যেসব পরিবর্তন আনতে হবে, সেসব বিষয়ে গত ২৬ নভেম্বর দ্য সিকিউরিটি প্রিন্টিং করপোরেশন (বাংলাদেশ) লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে চিঠি দিয়ে অবহিত করা হয়েছে।

সিকিউরিটি প্রিন্টিং করপোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালকে লেখা চিঠিতে বলা হয়েছে, পাঁচ টাকার ব্যাংক নোটকে কারেন্সি নোটে রূপান্তরের জন্য বর্তমানে প্রচলিত পাঁচ টাকা মূল্যমানের নোটে প্রয়োজনীয় পরিবর্তনগুলোর কারিগরী দিক বিশ্লেষণ করে আরো কোনো পরিবর্তনের প্রয়োজন আছে কি না, তা গভীরভাবে খতিয়ে দেখতে হবে।

কারেন্সি নোটে রূপান্তর সংক্রান্ত নোটের ডিজাইনের পরিবর্তনগুলো সম্পাদনের জন্য বর্তমানে নোট মুদ্রণে ব্যবহৃত প্লেটগুলো অরিজিনাশন ওয়ার্কস সংশোধন করতে হবে কি না, যদি সংশোধন করতে হয় সেক্ষেত্রে উক্ত সংশোধন কাজের জন্য সিকিউিরিটি প্রিন্টিং করপোরেশনের সক্ষমতা আছে কি না, যদি না থাকে তাহলে অরিজিনাশন ওয়ার্কস সংশোধন করে নতুন প্লেট সংগ্রহ করে পাঁচ টাকা মূল্যমানের কারেন্সি নোট মুদ্রণ করে বাংলাদেশ ব্যাংকে সরবরাহ করতে কত সময় লাগতে পাওে, এসব বিষয় জরুরি ভিত্তিতে বাংলাদেশ ব্যাংককে জানাতে বলা হয়ছে।

এ ছাড়াও পাঁচ টাকা মূল্যমানের ব্যাংক নোট মুদ্রণের জন্য আমদানি করা বর্তমানে মজুদকৃত কাগজে পাঁচ টাকার কারেন্সি নোট মুদ্রণ শুরু করা এবং কাগজ শেষ হলে বাংলাদেশ ব্যাংকের মনোগ্রামের পরিবর্তে জাতীয় মনোগ্রামের জলছাপযুক্ত কাগজে নোট মুদ্রণের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠিতে।

সূত্র জানায়, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ শেষে খুব শিগগির পাঁচ টাকার নতুন নোট বাজারে আসবে। নতুন কারেন্সি নোট চালুর পাশাপাশি বর্তমানে চালু ব্যাংক নোট এবং কয়েন বাজারে চালু থাকবে। তবে বাংলাদেশ ব্যাংক বর্তমানে চালু পাঁচ টাকার ব্যাংক নোট ধীর ধীরে বাজার থেকে তুলে নেবে।