মেইন ম্যেনু

পাউরুটিতে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী রাসায়নিক, বিপাকে গোটা দেশ!

বর্তমানে বাজারের অনেক পাউরুটিতেই রয়েছে ক্যান্সার-সৃষ্টিকারী রাসায়নিক পদার্থ। এমনই চাঞ্চল্যকর দাবি করেছে সেন্টার ফর সায়েন্স অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট (সিএসই)। যার পরই কালক্ষেপ না করে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয়।

সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, সম্প্রতি একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে সিএসই। সেখানে বলা হয়েছে, পাও এবং বান মিলিত ভারতের রাজধানীর খোলা বাজারে পাওয়া গিয়েছে ৩৮ রকমের পাউরুটির। যার মধ্যে ৮৪ শতাংশই ‘বিপজ্জনক’ পাউরুটি। খবর এবিপি।

রিপোর্ট অনুসারে, এই পাউরুটি পরীক্ষা করে তার মধ্যে পটাসিয়াম ব্রোমেট ও পটাসিয়াম আয়োডেট-এর অস্তিত্বের প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। প্রসঙ্গত, স্বাস্থ্যের পক্ষে বিপজ্জনক হওয়ায় এই দুই ধরণের রাসায়নিক পদার্থ বহু দেশেই নিষিদ্ধের তালিকায় রয়েছে।

জানা গিয়েছে, এই দুই ধরণের রাসায়নিকের মধ্যে একটি ‘২বি কার্সিনোজেন’ শ্রেণিভুক্ত। অর্থাৎ, এই রাসায়নিকের ফলে মানব শরীরে ক্যান্সার ছড়াতে পারে। অন্য রাসায়নিকের ফলে থাইরয়েডের সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে, এই দুই ধরণের রাসায়নিককের কোনোটি এখন পর্যন্ত নিষিদ্ধ করেনি ভারত।

সংস্থার ডেপুটি ডিজি চন্দ্রভূষণ জানান, দিল্লির বিভিন্ন ফাস্ট ফুড কর্ণার থেকে নামী ব্র্যান্ডের পাও, বান, বার্গার ও পিৎজা রুটি পরীক্ষা করা হয়। সেখান থেকেই এই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। তিনি জানান, নিরপেক্ষ সংস্থাকে দিয়েই এই পরীক্ষা করানো হয়েছে।

গোটা দেশে খাবারের মধ্যে এই দুই রাসায়নিকের মিশ্রণকে যাতে নিষিদ্ধ করা হয়, তার জন্য কেন্দ্রীয় খাদ্য নিরাপত্তা নিয়ন্ত্রক সংস্থা (এফএসএসএআই)-কে অনুরোধ করেছে সিএসই।

সিএসই-র পরীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশের পরই নড়েচড়ে বসেছে কেন্দ্র। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জে পি নাড্ডা জানান, আমরা বিষয়টিকে খতিয়ে দেখছি। অবিলম্বে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের থেকে রিপোর্ট সংগ্রহ করবেন বলেও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। তবে, তিনি এও জানিয়েছেন, এখনই আতঙ্কিত হওয়ার কিছুই নেই।