মেইন ম্যেনু

পাকিস্তান গুলি করে মারত, ভারত পানি না দিয়ে মারবে

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘পাকিস্তান আগে আমাদের গুলি করে মারত, আর ভারত পানি না দিয়ে আমাদের মারবে।’ আর এটি কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

তিনি বলেছেন, ‘ভারত আমাদের বন্ধুপ্রতিম দেশ। মুক্তিযুদ্ধের সময় তাদের সহযোগিতার কারণে আমরা কৃতজ্ঞ। কিন্তু পানি নিয়ে তারা যা করছে সেটি বন্ধুরাষ্ট্রের কাজ নয়।’

শুক্রবার (১৩ মে) দুপুরে রাজধানীর পুরানা পল্টনের বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের মিলনায়তনে বাংলাদেশ ন্যাপ আয়োজিত আলোচনাসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

‘ভারতের পানি অগ্রাসন প্রতিরোধে জাতীয় ঐক্যের প্রয়োজনীয়তা’ শীর্ষক ওই সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নজরুল ইসলাম খান। ঐতিহাসিক ফারাক্কা লং মার্চের ৪০তম বার্ষিকী উপলক্ষে এ সভার আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ৫৪টি অভিন্ন নদী রয়েছে উল্লেখ করে নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘ফারাক্কা বাঁধের প্রভাবে আমাদের নদী-নালা, খাল-বিল শুকিয়ে যাচ্ছে। কৃষকেরা পানির অভাবে ফসল ফলাতে পারছে না। অথচ আন্তর্জাতিক আইনে আছে, অভিন্ন নদীতে বাঁধ দিয়ে পানিপ্রবাহে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা যাবে না। কিন্তু ভারত সেটা মানছে না।’

নজরুল ইসলাম বলেন, ‘দেশে দেশপ্রেমিক সরকার থাকলে ভারতের সাথে আলাপ-আলোচনা করে সমতার ভিত্তিতে পানিসহ সব সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিতে পারত। কিন্তু আমাদের দেশে এখন যে সরকার আছে তারা নির্বাচিত নয়। সেজন্য জনগণের কাছেও তাদের কোনো জবাবদিহিতা নেই।’

চলমান ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে সহিংসতার বিষয়টি তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের নামে দেশে যা হচ্ছে তা মেনে নেয়া যায় না। এর মাধ্যমে সরকার নির্বাচনী প্রক্রিয়াটিকে পচিয়ে দিয়েছে।’

বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণির সভাপতিত্বে এবং মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুইয়ার সঞ্চালনার এতে আরো বক্তব্য দেন জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এনডিপির চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা, ডেমোক্রেটিক লীগের (ডিএল) সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, বাংলাদেশ জাতীয় দল চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, জাতীয় পার্টির (জাফর) যুগ্ম মহাসচিব এ এস এম শামীম, নাজিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, ন্যাপ যুগ্ম মহাসচিব স্বপন কুমার সাহা, নগর সদস্য সচিব শহীদুন্নবী ডাবলু, এনডিপির যুগ্ম মহাসচিব ফরিদ উদ্দিন প্রমুখ।