মেইন ম্যেনু

পাতারটেকের বাড়ির মালিকের স্ত্রী ও ভাই গ্রেফতার

গাজীপুরের নোয়াগাঁও পাতারটেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে সন্দেহভাজন ৭ জঙ্গি নিহত হওয়ার ঘটনায় রোববার রাতে জয়দেবপুর থানা পুলিশ দুইজনকে আটক করেছে।

আটকরা হলেন বাড়ির মালিক সৌদি আরব প্রবাসী সোলায়মান সরকারের স্ত্রী সালমা বেগম (৩২) এবং ভাই ওসমান গণি সরকার (৪৮)। সোমবার সকালে কালিগঞ্জের জাঙ্গালিয়ায় নিজ গ্রামের বাড়ি থেকে তাদের পুলিশ গ্রেফতার করে। তথ্য গোপন করে জঙ্গিদের বাড়ি ভাড়া দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

এদিকে, লেবু বাগান ও পাতারটেকে নিহত ৯ জঙ্গির ময়নাতদন্ত গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে সম্পন্ন হয়েছে। এখন পর্যন্ত নিহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। কেউই লাশ দাবি করেনি। ওই হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার জানিয়েছেন, লাশগুলো ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে পাঠনোর প্রক্রিয়া চলছে।

গাজীপুরের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ জানান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নোয়াগাঁও পাতারটেকে শনিবার পুলিশের অভিযানে নিহত অজ্ঞাত ৭ জনকে আসামি করে সন্ত্রাস দমন আইনে জয়দেবপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। জয়দেবপুর থানার ওসি খন্দকার রেজাউল হাসান রেজা বাদী হয়ে রোববার অস্ত্র আইনে মামলাটি দায়ের করেন। নিহত সাতজনকে আসামি করে অস্ত্র আইনে এ মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। পরে রাতে ওই বাড়ি থেকে ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ সুপার বলেন, বাড়িওয়ালা ভাড়াটিয়া তথ্য ফরম জমা দিয়েছেন। কিন্তু তিনি কখনই বলেন নাই যে তার ওখানে ব্যাচেলর ভাড়াটিয়া আছে। সে কারণেই আমরা বাড়িওয়ালার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনছি যে তিনি স্বেচ্ছায় তাদেরকে ভাড়া দিয়েছেন এবং তিনি বলেছেন তার আত্মীয়ের কাছে বাড়ি ভাড়া দিয়েছেন।

এদিকে, সোলায়মান মিয়ার বাড়িটি দেখাশোনার দায়িত্বে ছিলেন তার ছোট ভাই প্রাক্তন মাদ্রাসা শিক্ষক ওসমান সরকার। তিনি কালীগঞ্জ উপজেলার জাঙ্গালীয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার প্রাক্তন শিক্ষক বলে প্রথমে জানা গেলেও পরবর্তীতে খোঁজ নিয়ে জানা যায় তিনি আজমতপুর স্কুল এন্ড কলেজের প্রাক্তন শিক্ষক। তার গ্রামের বাড়ি গাজীপুরের কালীগঞ্জে।