মেইন ম্যেনু

পাত্রপাত্রী দেখার আদবকেতা

পারিবারিকভাবে বিয়ে হলে সে ক্ষেত্রে পাত্র বা পাত্রী দেখতে যাওয়ার কাজটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ। কারণ এর ওপরই অনেকটা নির্ভর করে বিয়ে হবে কি হবে না। প্রথম দেখা করতে গেলে অনেক বিষয় খেয়াল রাখা প্রয়োজন। বলতে গেলে বিয়ের পাকা কথা এখান থেকেই শুরু হয়। অনেকে শুরুতেই বড় ধরনের ঝামেলা পাকিয়ে ফেলেন। সামন্য ভুলের জন্য অনেক সম্পর্কই শুরু হওয়ার আগে ভেঙে যায়। তাই এসব ক্ষেত্রে কিছু আদবকেতা মেনে চলা উচিত। লাইফস্টাইল বিষয়ক ওয়েবসাইট আইডিভাতে পাত্র বা পাত্রীর সাথে প্রথম দেখা করার বিষয়ে আদবকেতার কিছু দিক তুলে ধরা হয়েছে।

জেনে নিন প্রথম পাত্রপাত্রীর সঙ্গে দেখা করার সময় যেসব আদবকায়দা মেনে চলবেন

  • ছবি দেখে কারো সম্বন্ধে ধারণা করা ঠিক না। বাস্তবে সে রকম নাও হতে পারে। তাই দেখা হওয়ার পর কথা বললে কিছুটা বোঝা সম্ভব সে কেমন মানুষ হতে পারে। অতএব চুপ করে না থেকে কথা বলার চেষ্টা করুন।নিজে জানুন ও আপনাকে জানার সুযোগ করে দিন।
  • দুজনেই দুজনার জীবনযাপন বা ভালোলাগা অথবা শখ সম্বন্ধে আগে থেকেই কিছুটা হলে জেনে নিন। তাহলে প্রথম পরিচয়ে অনেক বিষয় পাবেন কথা বলার জন্য।
  •  পাত্রপাত্রীর সঙ্গে দেখা করার জন্য একটি ভালো জায়গা নির্বাচন করুন। এমন কোনো জায়গায় যাবেন না যেখানে সে অস্বস্তিবোধ করে। অথবা চেষ্টা করুন তার পছন্দের জায়গায় যাওয়ার। যেখানে সে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবে।
  •  বন্ধু বা পরিবারের সদস্যদের নিয়ে দেখা করতে যাওয়ার চেষ্টা করুন। অনেক কিছুই নিজে বলতে পারবেন না বা বললে ভালো দেখাবে না সে ক্ষেত্রে বন্ধু বা আত্মীয়দের দিয়ে বলানোর চেষ্টা করুন।
  • দেখা করার একদিন আগে অন্তত ফোনে অল্প হলেও কথা বলে নিন। এতে একেবারে অপরিচিত ভাবটা থাকবে না।
  • দেখা করতে গিয়ে আগেই প্রশ্ন করা শুরু করবেন না। প্রথমে সৌজন্যমূলক কিছু কথা বলে পরিবেশটা স্বাভাবিক করে নিন।
  • রান্না করতে পারেন? এ ধরনের প্রশ্ন না করাই ভালো। চাকরির সাক্ষাৎকারের মতো প্রশ্ন না করাই ভালো।
  • যে জায়গায় দেখা করবেন সেখানে যেন দুজনেরই আসতে সুবিধা হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন।
  • রেস্তোরাঁর মেনু দেখে বিপরীত লিঙ্গের মানুষটিকে খাবার অর্ডার দিতে বলুন। এটা এক ধরনের ভদ্রতা।
  •  নিজের সম্পর্কে অযথা বাড়িয়ে বলবেন না। পরে সেগুলো ভুল প্রমাণিত হলে সম্পর্ক মাঝপথেই ভেঙে যেতে পারে।
  • আপনার বেতন কত?  এ রকম প্রশ্ন এড়িয়ে যাওয়াই ভালো।
  • বিপরীত লিঙ্গের মানুষ যদি কথা বলতে সংকোচ বোধ করে তাহলে তাকে কথার মাধ্যমে স্বাভাবিক হতে সাহায্য করুন।
  • নিজের পরিবার, আত্মীয়-পরিজন সম্বন্ধে জানানোর চেষ্টা করুন। যাতে পরে সে সবার সম্বন্ধে ধারণা রাখতে পারে।
  • অন্য প্রসঙ্গ যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন। যদি কোনো কথায় অপরপক্ষের মানুষের মন খারাপ হয় তাহলে সঙ্গে সঙ্গে প্রসঙ্গ পাল্টে ফেলুন।
  • মানুষটিকে যদি আপনার পছন্দ না হয় তাহলে তাকে ভুলেও তখন বুঝতে দিবেন না। সরাসরি জানতে পারলে সে মনে অনেক কষ্ট পাবে।
  • কোনো কথা তার কাছে লুকানোর চেষ্টা করবেন না। মনে রাখবেন কোনো কিছু লুকিয়ে সম্পর্ক টেকানো সম্ভব হয় না।
  • দেখা শেষ করে কিভাবে সে বাসায় ফিরবে তা ভালোভাবে জেনে তাকে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করুন।