মেইন ম্যেনু

পান কমাবে অতিরিক্ত ওজন!

পান খাওয়ার অভ্যাসকে নেশা বললে ঠিক মানাই না। আমাদের দেশের মুরুব্বি শ্রেণির কাছে পান খাওয়ার প্রচলনটা চলে সম্মানের সঙ্গে। অল্প বা মধ্য বয়স্কদেরও পান খাওয়ার অভ্যাস আছে। বিশেষ করে নানা বাঙালিয়ানা উৎসবে পান না হলে যেন আপ্যায়নে তৃপ্তি মেটে না কারো। সুপারি, জর্দা, চুন আর মিষ্টি মসলার কারসাজিতে পানের রস দিয়ে সুরভিত গাল রাঙানোও অতিথিদের কাছে পরম আরাধ্য। এ তো গেল রসিক পানের বাহ্যিক রূপের বর্ণনা। অসাধারণ ভেষজ গুণের অধিকারী পান সারাতে পারে দেহের নানা রকম রোগব্যাধি। একটি পান পাতা আপনার দেহের অতিরিক্ত ওজন কমাতে রাখতে পারে কার্যকরী ভূমিকা!

পানে রয়েছে খুবই শক্তিশালী ক্র্যামাটিভ বৈশিষ্ট যা সঠিকভাবে হজম প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে। একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, পান চিবুলে মেটাবলিজমকে উন্নত করে। পাশাপাশি পাকস্থলিতে মিউকাস বৃদ্ধির মাধ্যমে এসিডিটি সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। গ্যাস্ট্রিক সমস্যায় আক্রান্ত হওয়া থেকে মুক্ত রাখতে সাহায্য করে। আপনি যতক্ষণ পান চিবুতে থাকবেন এতে আপনার মুখগহ্বরে স্যালিভা উৎপাদিত হবে এবং পাকস্থলিতে এক ধরনের সিগনাল যাবে যার ফলে যেই খাবার আপনি গ্রহণ করেছেন তা হজম হওয়ার জন্য তৈরি হবে। এছাড়াও পাকস্থলী থেকে বিষ দূর করতে সাহায্য করে যা কোষ্ঠ্যাকাঠিন্য এর মত সমস্যা দূর করবে সহজেই। যারা আয়ুর্বেদ চর্চা করেন তাদের মতে, পান পাতা দেখে অতিরিক্ত মেদ কমাতে অসাধারণ কাজ করে যা আপনার দেহের অতিরিক্ত ওজন কমানোর প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করে। তাই স্বাস্থ্যগত উপকার পেতে প্রচলিত নিয়মে পান খাওয়া নয়, প্রয়োজন ভেষজ নিয়ম অনুসরণ। কারণ- চুন, সুপারি, জর্দা দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এজন্য-

একটি সতেজ এবং সবুজ পান পাতা নিন। এতে ৫টি কালো গোল মরিচ পাতা ভাঁজ করে চিবুতে থাকুন। গোল মরিচে রয়েছে ফাইটোনিউট্রেন্টস এবং পেপারিন যা জিদ্দি চর্বি ভাঙতে সাহায্য করবে। এছাড়াও খাবার হজমে সাহায্য করে। প্রথম দিকে গোল মরিচের কারণে একটু ঝাল লাগবে তারপরেও আপনি চিবুতে থাকুন। সকালে খালি পেটে প্রতিদিন একটা করে খেতে হবে। মাত্র ১০ দিনেই টের পাবেন নিজের শরীরের পরিবর্তন। তবে এসম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে নিকটস্থ আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন।