মেইন ম্যেনু

পালমিরায় প্রাচীন স্থাপত্যে ‘আইএস তাণ্ডব’

সিরিয়ার, পালমিরা প্রদেশের, বালশামিন এলাকায়, বহু বছরের ঐতিহ্যবাহী এবং প্রাচীন স্থাপত্যের অপূর্ব নিদর্শন এক মন্দির মাটিতে মিশিয়ে দিয়েছে ইসলামিক স্টেটের সেনারা। সিরিয়া সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং পর্যবেক্ষণরত মানবাধিকার কর্মীরা এ তথ্য জানিয়েছে।

সিরিয়ার প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ এ ঘটনায় পলিমার স্থাপনারগুলোর ভবিষ্যত সম্পরেক গভীর শঙ্কা প্রকাশ করেছে। ইসলামিক স্টেট যখন পালমিরায় প্রবেশ করেছিল, তখন থেকেই সিরিয়াসহ গোটা বিশ্বের অনেকেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন প্রাচীন স্থাপত্যের ভবষ্যত পরিণত তি কী হবে তা ভেবে। কেননা, ইসলামিক স্টেটের অতিচরমপন্থা প্রাচীন স্থাপত্যকলা-বিষয়ে সহনশীল নয়।

এছাড়া সম্প্রতি সিরিয়ার বিখ্যাত প্রত্নতাত্ত্বিক খালিদ আল আসাদকে ধরে নিয়ে গিয়ে হত্যা করে ইসলামিক স্টেট।

পলমিরা ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্বঐতিহ্যের অন্তর্গত। এ ধরনের স্থানগুলো আইএস দখল করার পর স্থাপত্য বা ভাস্কর্যের ওপর একই আক্রোশ দেখিয়েছে। বাগদাদের ঐতিহ্যবাহী জাদুঘরটিতেও অজস্র অমূল্য প্রত্নসম্পদ বিনষ্ট হয়েছে। আইএস একদিকে ধ্বংসযজ্ঞ চালাচ্ছে, অপরদিকে ইউরোপীয় প্রত্নব্যবসায়ী বা সংগ্রাহকদের কাছেও চোরাই পথে প্রত্নসম্পদের একাংশ পৌঁছে যাচ্ছে বলে শোনা যায়।