মেইন ম্যেনু

পিটিয়ে বৃদ্ধের বুকের হাড় ভেঙে দিলেন ভূমি কর্মকর্তা

জয়পুরহাটে এক বৃদ্ধ কৃষককে পিটিয়ে তাঁর একটি হাত, একটি পা ও বুকের একটি হাড় ভেঙে দেওয়া হয়েছে। জমি সংক্রান্ত ব্যক্তিগত বিরোধের জের ধরে জেলার পাঁচবিবি উপজেলার পানিয়াল গ্রামের বাসিন্দা সহকারী ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা মোফাজ্জল হোসেন এই ঘটনা ঘটান বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আহত কৃষকের নাম হায়বর আলী। বর্তমানে তিনি জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

পাঁচবিবি উপজেলার পানিয়াল গ্রামে গত ২৯ মে রোববার সকালে এ মারপিটের ঘটনা ঘটে। বৃদ্ধ হায়বর আলী ওই গ্রামের মৃত ইয়াদ আলীর ছেলে।

এ ঘটনায় আহত হায়বর আলীর মেয়ের জামাই ইদ্রিস আলী বাদী হয়ে জয়পুরহাটের বিচারিক হাকিম আদালতে (খ অঞ্চল) মামলা করেছেন। আসামি মোফাজ্জল হোসেন ক্ষেতলাল উপজেলার একটি ইউনিয়নের ভূমি কার্যালয়ে কর্মরত রয়েছেন।

পেটানোর ব্যাপারে ওই ভূমি কর্মকর্তা কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

বৃদ্ধ হায়বর আলীর ছেলে ধলু মিয়া এবং গ্রামের আরো কয়েকজন বাসিন্দা জানায়, পানিয়াল গ্রামের পশ্চিম মাঠের ৪৯ শতাংশ জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে হায়বর আলীর সঙ্গে একই গ্রামের অধিবাসী ভূমি কর্মকর্তা মোফাজ্জল হোসেনের বিরোধ চলে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২৯ মে সকালে বৃদ্ধ হায়বর আলী নিজের দখলে থাকা বিরোধপূর্ণ ওই জমিতে বোরো ধান কাটতে গেলে মোফাজ্জল ও তাঁর পাঁচ-ছয়জন নিকটাত্মীয় ও ভাড়াটে লোকজন লাঠিসোঁটা ও লোহার রড ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে আকস্মিক হামলা চালিয়ে বৃদ্ধ হায়বর আলীকে মারাত্মকভাবে আহত করে। ওই সময় তাঁর চিৎকার শুনে এলাকার লোকজন ছুটে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন আহত হায়বর আলীকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করে।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আবু জাফর জানান, আহত হায়বর আলীর এক হাত, এক পা ও বুকের একটি হাড় ভেঙে গেছে। বর্তমানে তিনি আশঙ্কামুক্ত হলেও পুরোপুরি সুস্থ হতে আরো সময় লাগবে।

হায়বর আলীর আইনজীবী শহিদুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় আহত হায়বর আলীর মেয়ের জামাই ইদ্রিস আলী বাদী হয়ে আদালতে মামলা করেছেন।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশরাফুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় আদালতের আদেশ পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।