মেইন ম্যেনু

পিতা ২৫ বছর ধরে ধর্ষণ করেছে দুই মেয়েকে!

পাঠকদের নিশ্চয় অষ্ট্রিয়ার ইওজেফ ফ্রিৎসেলের কথা মনে আছে, যে তার নিজের মেয়েকে টানা ২৪ বছর ধরে ধর্ষণ করেছিল৷

এবার একই ধরণের ঘটনার খবর বেরোল ব্রিটেনে৷ তবে এবার একজন নয়, দু-দু’জন মেয়েকে ২৫ বছর ধরে ধর্ষণ করেছে তাদের ৫৬ বছর বয়সি বাবা৷

এসময়ে মোট ১৮ বার গর্ভধারণের ঘটনাও ঘটেছে৷ তবে বাবার সঙ্গে দুই মেয়ের সন্তানের সংখ্যা সাত৷

বুধবার শেফিল্ডের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের এক রিভিউ প্রতিবেদনে ঘটনাটি প্রকাশ পেয়েছে৷ আইনগত কারণে বাবার নাম প্রকাশ করা হয়নি৷

তবে কর্তৃপক্ষ ধারাবাহিক ধর্ষণের হাত থেকে মেয়ে দু’জনকে রক্ষা করতে না পারায় তাদের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা প্রার্থণা করেছে৷

শেফিল্ড সেফগার্ডিং চিলড্রেন বোর্ডের প্রধান সু ফিনেস বলেছেন, তাঁরা ঐ দু’জনকে রক্ষা করতে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছেন৷

ধর্ষণের ঘটনা প্রথম শুরু হয় ১৯৮১ সালে৷ তখন একজনের বয়স ছিল আট আর অন্যজনের দশ৷ প্রথম দিকে প্রতিদিনই তাদের ধর্ষণ করা হতো৷ পরে এই সংখ্যা সপ্তাহে দুই-তিনদিনে নেমে আসে বলে ঐ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে৷

যদি তারা তাদের বাবাকে ঐ কাজে প্রতিহত করতে চাইতো তাহলে তাদের মারধর করা হতো, এমনকি কখনো কখনো আগুনের শিখার কাছে তাদের নিয়ে যাওয়া হতো৷

ঘটনা যেন কেউ বুঝতে না পারে সেজন্য এই পরিবার মোট ৬৭ বার বাসা বদল করেছে বলে ঐ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে৷

ব্রিটেনের শিশুবিষয়ক মন্ত্রী এড বলস্ এটাকে ভয়ঙ্কর বলে আখ্যায়িত করেছেন এবং বলেছেন, এধরণের ঘটনা অবশ্যই প্রতিরোধ করা উচিত ছিল৷

তিনি বলেন, অনেকের মত তাঁরও এটা বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে যে, একজন পিতা কিভাবে তার মেয়েদের সঙ্গে এধরণের কাজ করতে পারে৷ -সূত্র: ডয়েচ ভেলে।