মেইন ম্যেনু

পিরিয়ড থেকে বোঝা যায় যে স্বাস্থ্য সমস্যাগুলো

পিরিয়ড প্রত্যেকটি মেয়ের জীবনেই খুব সহজ, কাঙ্ক্ষিত আর স্বাভাবিক একটি প্রক্রিয়া, যার ভেতর দিয়ে যেতে হয় পৃথিবীর প্রত্যেকটি নারীকেই। এই একটি ছোট্ট ঘটনাই একটি মেয়েকে পৌঁছে দেয় নারী হওয়ার প্রথম ধাপে। নিজের শরীর-মন আর এ সংক্রান্ত রহস্যগুলো একটু একটু করে পেঁয়াজের মতন খোলস ছড়াতে থাকে আর পরিষ্কার হয়ে ধরা দেয় মেয়েদের কাছে। তবে আপনি কি জানেন যে কেবল এই একটি ব্যাপারই নয়, আপনার প্রত্যেক মাসে হয়ে যাওয়া এই স্বাভাবিক প্রক্রিয়াটি চিহ্নিত করে দিতে পারে নানারকম স্বাস্থ্যগত জটিলতাও? চলুন জেনে আসি পিরিয়ডের মাধ্যমে প্রকাশ পাওয়া কিছু স্বাস্থ্যসংক্রান্ত তথ্যকে।
১. সন্তান জন্মদানের জটিলতা

প্রায় অনেকের ক্ষেত্রেই পিরিয়ডের সময়কার একটি অত্যন্ত কষ্টকর ব্যাপার হচ্ছে প্রচন্ড ব্যথা। অনেক সময় পিরিয়ড হওয়ার আগেই শুরু হয়ে যায় এই ব্যথার প্রকোপ। হয়তো অনেকেই ভাবেন যে বিষয়টি খুবই স্বাভাবিক। বাস্তবে এটি এন্ডোমেট্রিয়োসিসের পূর্বলক্ষণ। বিশেষ করে সেটা যদি অনেক বেশিরকম মাত্রার হয়ে থাকে। যার ফলে অনেকসময় নারীর সন্তান জন্মদানে সমস্যা সৃষ্টি হয় ( অপরাহ )। আর তাই এমনটা হলে দ্রুত চিকিত্সকের সাথে যোগাযোগ করুন।
২. রক্তস্বল্পতা

আপনার পিরিয়ডের রক্তপাত যদি বেশ ভারী আর খুব বেশি পরিমাণে হচ্ছে বলে আপনার মনে হয়ে থাকে তাহলে বুঝতে হবে আপনার রক্তস্বল্পতা হওয়ার খুব বেশি সুযোগ রয়েছে। এর ফলে মাথাব্যথা আর দূর্বলতা সবসময়েই ঘিরে রাখবে আপনাকে। যদি এমনটা হয় আর উক্ত ফলাফলগুলো ভোগ করতে থাকেন আপনি তাহলে দ্রুত ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন। তাহলে খুব সহজেই প্রাথমিক পর্যায়ে থামিয়ে দেওয়া যাবে সমস্যাটিকে।
৩. টিউমর

আপনার পিরিয়ড কি মাঝে মাঝেই বন্ধ বা অনিয়মিত হয়? নিজের স্তন পরীক্ষা করে দেখুন একবার। সেখানে যদি সাদা রঙএর কোনকিছু তাকে তাহলে দ্রুত চিকিত্কের কাছে যান। এই সাথে যদি খানিকটা মাথাব্যথা থাকে তাহলেতো কোন কথাই নেই! কারণ এর সবটাই পিটুইটারি গ্রন্থির টিউমরের চিহ্ন। তাই খুব তাড়াতাড়ি চিকিত্সকের সাথে আলাপ করুন।
৪. হরমোনের অস্বাভাবিকতা

আপনার পিরিয়ড যদি অনিয়মিত হয়ে থাকে তাহলে চিকিত্সকের কাছে চলে যান। কারণ, এর কারণ হতে পারে আপনার থাইরয়েডে সমস্যা (লাইফহ্যাক)। থাইরয়েড শরীরের বিভিন্ন হরমোনগুলোকে ঠিকঠাকভাবে উত্পন্ন করে। আর তাই থাইরয়েডের সমস্যা দেখা দিলে আপনার শরীরের হরমোনজনিত নানারকম ব্যাপারগুলোও প্রভাবিত হবে।
৫. জরায়ুতে বাড়তি স্তর

একটু খেয়াল করে দেখুন তো, আপনার পিরিয়ড কি মাঝে মাঝেই শুরু হওয়ার আগে বা শেষ হওয়ার পরেও চলতে থাকে? অথবা কখনো কি পিরিয়ডের নির্দিষ্ট চক্রকে ভেঙে ফেলে সেটি? তাহলে বুঝতে হবে যে আপনার জরায়ু বা জরায়ুমুখে পলিপ জমেছে। এই পলিপ থেকে মুক্তি পেতে তাই যোগাযোগ করুন চিকিত্সকের কাছে।