মেইন ম্যেনু

পুতিনকে এরদোয়ানের চ্যালেঞ্জ

আইএসের সঙ্গে তুরস্কের তেল বাণিজ্য আছে বলে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন যে অভিযোগ করেছেন, তা অস্বীকার করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান। তিনি পুতিনকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট যদি প্রমাণ করতে পারেন তুরস্ক আইএসের সঙ্গে তেলের ব্যবসা করে, তবে তিনি পদত্যাগ করবেন। আর প্রমাণ করতে না পারলে পুতিনকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানান তিনি।

ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে জাতিসংঘ জলবায়ু সম্মেলনে অন্যান্য বিশ্বনেতার সঙ্গে যোগ দিয়েছেন পুতিন ও এরদোয়ানও। তবে সেখানে তাদের মধ্যে এখনো কোনো বৈঠক হয়নি। তুরস্ক যুদ্ধবিমান রাশিয়ার বিমান ভূপাতিত করার ঘটনায় দোষ স্বীকার করার আগ পর্যন্ত পুতিন এরদোয়ানের সঙ্গে বৈঠক করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

প্যারিসে সোমবার পুতিন অভিযোগ করে বলেন, আইএস যে তেলের জোগান দেয় তা অব্যাহত রাখতেই রাশিয়ার সুখেই-২৪ যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করেছে তুরস্ক।

পুতিনের এমন বক্তব্যের কয়েক ঘণ্টা পরই তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান তা অস্বীকার করেন। তুরস্কের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম আনাতোলিয়া জানায়, জলবায়ু সম্মেলনের ফাঁকে পুতিনের অভিযোগ অস্বীকার করে এরদোয়ান বলেন, ‘আমি এ বিষয়ে কঠোর ভাষায় বলতে চাই, এ ধরনের কোনো অভিযোগ যদি কেউ প্রমাণ করতে পারে, আমাদের দেশের মর্যাদা রক্ষায় আমি পদত্যাগ করব। তবে আমি এও স্পষ্ট করে পুতিনকে বলতে চাই, প্রমাণ করতে না পারলে কি আপনি পদত্যাগ করবেন?’

এক সাক্ষাৎকারে এরদোয়ান বলেন, ‘আমাদের এখন ধৈর্য ধারণ করতে হবে এবং আবেগতাড়িত হয়ে আচরণ করলে চলবে না।’

এরদোয়ান দাবি করেন, তুরস্ক তার সব তেল ও গ্যাস বৈধ পথে সংগ্রহ করে। তিনি বলেন, ‘সবার জানা দরকার, আমরা এতটা অসৎ না যে, সন্ত্রাসী গ্রুপের সঙ্গে আমাদের এই ধরনের ব্যবসা করতে হবে।’

রাশিয়ার সুখেই-২৪ যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করার পর থেকেই পুতিন অভিযোগ করে আসছেন, তুরস্ক সন্ত্রাসীদের মদদদাতা এবং আইএস অধ্যূষিত অঞ্চল থেকে তাদের দেশ দিয়ে তেল অন্যান্য দেশের কাছে বিক্রি করা হয়।

তথ্যসূত্র : আলজাজিরা ও রয়টার্স অনলাইন।