মেইন ম্যেনু

পুরুষও দিতে পারবে সন্তানের জন্ম

পৃথিবীতে বেশ কিছু ধ্রুব সত্য রয়েছে। যেগুলোর পরিবর্তন কখনো সম্ভব নয় বলেই মনে করা হয়। কিন্তু ভবিষ্যতে হয়তো ভুল প্রমাণিত হতে পারে একাধিক ধ্রুব সত্য। কেননা পরিবর্তনের এই প্রচেষ্টায় বিজ্ঞানীরা হাল ছাড়তে নারাজ।

যেমন একজন নারীই সন্তানের জন্ম দিতে পারেন- এমন ধ্রুব সত্যও হয়তো বদলে যাবে। কারণ বিজ্ঞানীদের দাবি, সন্তানের জন্ম দিতে নারীসঙ্গ আর প্রয়োজন হবে না পুরুষের। বিজ্ঞানীরা এমন এক গবেষণা চালাচ্ছেন যেটি সফল হলে পৃথিবীর নিয়ম কার্যত বদলে ফেলা সম্ভব হবে। একদল ব্রিটিশ বিজ্ঞানী পুরুষ ইঁদুরের শুক্রানু দ্বারা স্ত্রী ইঁদুরের ডিম্বাশয়ে ডিম্বানুর মিলন না ঘটিয়েই ইঁদুর জন্ম দিতে সক্ষম হয়েছেন। যাকে এক কথায় নজিরবিহীন বলা যেতেই পারে।

বিজ্ঞানী দলের প্রধান টনি পেরি বাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক। তিনি জানিয়েছেন, সন্তান জন্মের জন্য একটি ডিম্বানু ও একটি শুক্রানুর প্রয়োজন। নারী শরীরে ডিম্বানু পুরুষের শুক্রানুর সঙ্গে মিলিত হয়ে জাইগোট তৈরি করে। তারপরই মহিলারা গর্ভধারণ করেন। তবে নির্দিষ্ট উপায়ে ডিম্বানুর পরিবর্তে ত্বকের বা অন্য জায়গার কোষ ব্যবহার করে সাফল্য আসতে পারে। এর সাহায্যেও ভ্রুণ তৈরি হতে পারে। এর ফলে একজন সমকামী পুরুষও সন্তানের জন্ম দিতে পারবে। অথবা পুরুষ নিজেরাই একা সন্তানের জন্ম দিতে সক্ষম হবে।

ক্যানসারের ওষুধ সেবনে অথবা রেডিও থেরাপির ফলে অনেক নারীর মা হওয়ার স্বপ্ন শেষ হয়ে যায়। তাদের ক্ষেত্রে সন্তানের জন্ম দেওয়া সহজ হবে। অর্থাৎ শুধু পুরুষরাই নন, মহিলারাও এককভাবে সন্তানের জন্ম দিতে সক্ষম হবে। এক্ষেত্রে পুরুষের ক্ষেত্রে যেমন শুক্রানুর সঙ্গে কোষের মিলন ঘটানো হতো, মহিলাদের ক্ষেত্রে ডিম্বানুর সঙ্গে কোষের মিলন ঘটানো হবে।

গবেষণাটি এখনো প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। এ ব্যাপারে বিজ্ঞানীরা আরো ব্যাপক গবেষণা করবেন। এই প্রক্রিয়া সফল হলে একাধিক বিপন্ন প্রজাতি সংরক্ষণ এবং তাদের প্রজনন করানোর রাস্তা খুলে যাবে বলেও বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন।

তথ্যসূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া