মেইন ম্যেনু

পুরুষের দীর্ঘস্থায়ী জন্মনিয়ন্ত্রণ ইঞ্জেকশন

নারীদের গর্ভনিরোধক পিলের অভাব নেই। কিন্তু পুরুষদের জন্য দীর্ঘস্থায়ী জন্মনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার অভাব রয়েছে। এবার সেই সমস্যার সমাধান হতে চলেছে। খুব শীঘ্রই আসতে চলেছে এমন একটি ইঞ্জেকশন যা ব্যবহার করলে এক বছরের জন্য কন্ডোম ছাড়াই সহবাস করতে পারবেন কোনও পুরুষ।

একটি গবেষক দলের বরাত দিয়ে টেলিগ্রাফ জানিয়েছে, ভ্যাসালজেল নামের ওই গর্ভনিরোধক ইঞ্জেকশন তৈরির ব্যাপারে সাফল্য পাওয়া গেছে।

পুরুষদের জন্য মূলত দুটি জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। একটি হল কন্ডোমের ব্যবহার, অন্যটি বন্ধ্যাত্বকরণ (ভ্যাসেকটোমি)। কন্ডোম শুধু জন্মনিয়ন্ত্রণই নয়, রোগ প্রতিরোধেও কার্যকর। কোনও কোনও ক্ষেত্রে জন্মনিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে ব্যাপারে কন্ডোমের সীমাবদ্ধতা ধরা পড়েছে।

ভ্যাসেকটোমি কার্যকর। কিন্তু সাধারণত, একে চিরস্থায়ী বলেই ধরে নেওয়া হয়। কিন্তু এর বাইরে দীর্ঘস্থায়ী, কিন্তু ব্যবহার করা বন্ধ করলে প্রজনন ক্ষমতা ফিরে পাওয়া যায়, এমন কোনও ব্যবস্থা নেই। আর এই ক্ষেত্রেই ভ্যালাসজেল কার্যকরী ভূমিকা নিতে পারে। খরগোসের ওপর পরীক্ষা চালিয়ে গবেষকরা দেখেছেন, ভ্যালাসজেলের জন্মনিয়ন্ত্রণ প্রভাব ১২ মাস স্থায়ী হয়েছে। আমেরিকার শিকাগোর ইলিনিওস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দলের প্রধান ডোনাল্ড ওয়েলার বলেছেন, খরগোসের ওপর এই পরীক্ষায় প্রত্যাশার থেকেও ভালো ফল পাওয়া গিয়েছে।

আমেরিকার অলাভজনক সংস্থা পারসিমাস ফাউন্ডেশন ভ্যাসালজেল তৈরি করেছে। বাজারে এটিই হয়ত প্রথম দীর্ঘস্থায়ী, নন-হরমোনাল ব্যবহার করা বন্ধ করলে প্রজনন ক্ষমতা ফিরে পাওয়া যায়- এমন জন্মনিয়ন্ত্রণ ইঞ্জেকশন হিসেবে আসতে পারে।