মেইন ম্যেনু

পুলিশ সদস্যের পেট থেকে বের হলো ৪০ ছুরি (ভিডিও)

ভারতের অমৃতসরের বাসিন্দা ৪২ বছর বয়সী জার্নেল সিংহ পেশায় পুলিশের সদস্য ছিলেন। কয়েক দিন আগে পেটে ব্যথা নিয়ে হাজির হয়েছিলেন চিকিৎসকের কাছে। চিকিৎসক জ্যোতিন্দর মালহোত্র প্রাথমিক পরীক্ষার পর পেট ব্যথার কোনো কারণ খুঁজে পাননি।

পরে রোগীর আল্ট্রাসনোগ্রাম পরীক্ষা করেন তিনি। পেটের ভেতরে শক্ত কিছু রয়েছে বলে রিপোর্টে জানা যায়। কিন্তু পেটে আসলে কী রয়েছে তা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছিল না। ফলে ডাক্তার মালহোত্র রোগীর এন্ডোস্কোপি ও সিটি স্ক্যান করানোর সিদ্ধান্ত নেন।

রিপোর্ট দেখে চোখ কপালে উঠে তার। কারণ জার্নেলের পেটের ভেতরে রয়েছে বেশ কিছু ধাতব ছুরি। চিকিৎসক মালহোত্রের নেতৃত্বে অমৃতসরের দা কর্পোরেট হাসপাতালে পাঁচ সদস্যের মেডিকেল টিম গঠন করা হয়। মালহোত্র ছাড়াও সেই দলে অংশগ্রহণ করেন ডাক্তার বি বি গোয়াল, রজিন্দর রাজন, আরতি মালহোত্র এবং অনিতা। প্রায় ৫ ঘন্টা ধরে চলে জটিল অস্ত্রোপচার। জার্নেলের পেট থেকে একটি একটি করে বের করা হতে থাকে ছুরি। সর্বমোট ৪০টি ছুরি উদ্ধার হয় তার পেট থেকে।

চিকিৎসক মালহোত্র বলেন, ‘আমার ২০ বছরের জীবনের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর অপারেশন ছিল এটি। এরকম অদ্ভুত কেস আমি আগে কখনো দেখিনি’। অপারেশনের পরে একটু একটু করে সুস্থ হয়ে উঠছেন জার্নেল।

কিন্তু প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, জার্নেলের পেটে ধাতব ছুরি গেল কীভাবে! চিকিৎসকরা বলছেন, গত দু’ মাস ধরে এই ছুরিগুলো খেয়েছেন জার্নেল। কিন্তু খামোখা ছুরি খেতে গেলেন কেন? এই প্রশ্ন চিকিৎসকরা করেছিলেন রোগীর কাছে। জবাবে জার্নেল সিংহ বলেছেন, আমার ইচ্ছে হত ছুরি খেতে, তাই খেয়েছি। এ উত্তর থেকে চিকিৎসকরা এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন যে, জার্নেল মানসিকভাবে সুস্থ নন।

কিন্তু এতগুলি ছুরি খাওয়ার পরেও কীভাবে জীবিত ছিলেন জার্নেল? চিকৎসকের মন্তব্য, অতি আশ্চর্যজনকভাবে ছুরিগুলো জার্নেলের শরীরের অভ্যন্তরে কোনো ক্ষতি করেনি। যে ছুরিগুলি পাওয়া গেছে জার্নেলের শরীর থেকে তার কয়েকটি ছিল ফলা-বন্দী অবস্থায়, কয়েকটির ফলা ছিল মুক্ত, কয়েকটি মরচে ধরা ছুরি আবার পেটের ভেতর গিয়ে ক্ষয়প্রাপ্ত হয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন