মেইন ম্যেনু

পৃথিবীতে আবারও ফিরে আসছে বরফ যুগ!

২০৩০ সাল অর্থাৎ আগামী ১৫ বছরের মধ্যেই আবারও বরফ যুগের সূচনা হবে বলে শঙ্কা প্রকাশ করছেন একদল সৌরবিজ্ঞানী। তাদের ভাষ্য অনুযায়ী সৌরচক্র সম্পর্কে এখন আগের চেয়ে অনেক নিখুতভাবে ভবিষ্যতবানী দেয়া সম্ভব। কারণ নতুন যে মডেল বের করা হয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে গত ১১ বছর ধরে সূর্যের ভেতর অনিয়মতান্ত্রিক বিক্রিয়া হচ্ছে। নতুন এই মডেল দেখাচ্ছে যে ২০৩০ থেকে ২০৪০ সালের মধ্যে সৌর কার্যক্রম ৬০ শতাংশ পর্যন্ত পতিত হবে এবং এই কারণে একটি ক্ষুদ্র বরফ যুগের সৃষ্টি হতে পারে।

এর আগে, ১৬৪৫ থেকে ১৭১৫ সাল পর্যন্ত আরও একটি ক্ষুদ্র বরফ যুগের সৃষ্টি হয়েছিল। ওই বরফ যুগের নামকরণ করা হয়েছিল মান্ডার মিনিমাম। সম্প্রতি লন্ডনের লান্দুডোনোতে ন্যাশনাল অ্যাসট্রোনমি আয়োজিত এক সভায় অধ্যাপক ভ্যালেন্টিনা ঝারকোভা এই বক্তব্য তুলে ধরেন। মূলত ১৮৪৩ সালে সর্বপ্রথম সৌরবিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেন যে, ১০ থেকে ১২ বছরের চক্র অতিক্রম করার পর সূর্য কিছুটা ভিন্ন আচরণ করে। তবে এই ভিন্ন আচরণের সঠিক ব্যাখ্যা এখন পর্যন্ত সৌরবিজ্ঞানীরা দিতে পারেননি।

অধ্যাপক ঝারকোভা ও তার দল গবেষণায় পেয়েছেন যে, সূর্যের পৃষ্ঠতলে দ্বিতীয় সৌরশক্তি একটি আস্তরণ তৈরি করছে। পাশাপাশি বিজ্ঞানীরা সূর্যের উত্তর এবং দক্ষিণ গোলার্ধে দুইটি ভিন্নধর্মী চৌম্বকীয় তরঙ্গের উপস্থিতি পেয়েছেন।

বিজ্ঞানী ঝারকোভা বলেন, ‘দুইটি তরঙ্গকে একত্রীভূত করে এবং বর্তমান সৌরচক্র থেকে প্রাপ্ত বাস্তবিক তথ্যাদি থেকে আমরা এটা জানাতে পারছি যে আমাদের ভবিষ্যতবানী ৯৭ শতাংশ সফল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।’

চৌম্বকীয় তরঙ্গের ধরন দেখাচ্ছে যে পরবর্তী দুইটি সৌরচক্রের সময় চাদের শরীরে তুলনামূলক কম সৌরকলঙ্ক দেখা দেবে। ২৫ নম্বর চক্রটি শুরু হবে ২০২২ সালে এবং ২৬ নম্বর চক্রটি ২০৩০ থেকে ২০৪০ সালের মধ্যে হবে। এবং এই দুই সময়ই সৌর তৎপরতা উল্লেখযোগ্য হারে কমবে।