মেইন ম্যেনু

পেটের ভেতর আস্ত কাচের বোতল!

বিশ্বাসযোগ্য মনে না হলেও ঘটনা কিন্তু সত্যি- এক ব্যক্তির পাকস্থলীর ভেতর থেকে আস্ত একটি কাচের বোতল বের করা হয়েছে।

বরিশালে ৪০ বছরের ওই ব্যক্তির পেটে অস্ত্রোপচার করে পাকস্থলীর ভেতর থেকে বোতলটি বের করা হয়।

ওই রোগীর নাম জালাল। তিনি ভোলা জেলার লালমোহন থানার ফরাসগঞ্জ গ্রামের আব্দুল মোনাজের ছেলে।

জানা গেছে, গত ১৭ আগস্ট রাতে জালাল বরিশাল নগরীর পেরারা রোডের হেলথ কেয়ার ক্লিনিকে ভর্তি হন। পরের দিন তার শরীরে সফলভাবে ওই অস্ত্রোপচার সম্পন্ন করা হয়।

ক্লিনিকের সার্জন ডা. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, রোগীর শারীরিক অবস্থা ভালো থাকলেও পেটের ভেতরে কাচের ওই বোতল থাকা রহস্যজনক।

ক্লিনিক সূত্রে জানা গেছে, গত ১৭ আগস্ট রাতে পেটে প্রচণ্ড ব্যথা নিয়ে জালাল হেলথ কেয়ার ক্লিনিকে ভর্তি হন। সে সময় রোগীর স্বজনরা তার পেটের ভেতর প্লাস্টিকের বোতল ঢোকার কথা চিকিৎসকদের বলেন।

কীভাবে ওই বোতল ঢুকেছে জানতে চাইলে রোগীর স্বজনরা কখনো বলেছেন জিনে আছর করায় এমনটা হয়েছে। আবার কখনো বলেছেন বাঁশের পুল পার হতে গিয়ে তা ভেঙে পানিতে পড়ার পর এমনটা হয়েছে।

পরে চিকিৎসকরা প্লাস্টিকের বোতল খুঁজতে রোগীর কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করান। একপর্যায়ে ক্লিনিকের সার্জন ডা. জাহাঙ্গীর আলম সেলিম এক্স-রের মাধ্যমে পেটের ভেতর বোতল-সদৃশ বস্তু দেখতে পান।

ডা. জাহাঙ্গীর আলম সেলিম জানান, বোতলটি পায়ুপথ দিয়ে বের করা সম্ভব না হওয়ায় ওই রোগীকে বরিশাল শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। ।কিন্তু তাতে রাজি না হওয়ায় রোগীর ইচ্ছায় ১৮ আগস্ট অস্ত্রোপচার করে বোতলটি বের করা হয়।

তিনি জানান, তার চিকিৎসা জীবনে এতো বড় বোতল পায়ুপথ দিয়ে পেটে ঢোকার কথা শোনেননি। এ বিষয় নিয়ে অপারেশনের কথাও শোনেননি।

তবে রোগীর স্বজনরা কাল্পনিক গল্প শোনালেও বোতলটি যে প্রচণ্ড চাপ প্রয়োগ করে পায়ুপথ দিয়ে শরীরে ঢোকানো হয়েছে তা নিশ্চিত হয়েছেন চিকিৎসকরা।