মেইন ম্যেনু

পেস বোলিং নিয়ে হতাশ রকিবুল, দুষছেন বিসিবিকে

বাংলাদেশের ক্রিকেটে ভালো মানের পেসার না পাওয়ায় হতাশ জাতীয় দলের প্রাক্তন ক্রিকেটার রকিবুল হাসান। এজন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) দুষছেন তিনি। তার মতে, পেসার তৈরীতে যে পরিমাণ সময় ও চর্চার দরকার হয় সেটা বোর্ড করতে পারছে না।

বোর্ডের পাশাপাশি মাঠ স্বল্পতার কথাও বলেছেন রকিবুল হাসান। বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রকিবুল হাসান বলেন, ‘মিরপুর স্টেডিয়ামে বা অন্য স্টেডিয়ামগুলোতে ৩৬৫ দিনের প্রায় ২৪০ দিনই ক্রিকেট খেলা হচ্ছে। কোনোদিনই এটা গ্রহণযোগ্য নয়। একটা টেস্ট প্লেয়িং উইকেট তৈরি করতে হলে, আন্তর্জাতিক মানের উইকেট তৈরি করতে হলে ওই উইকেটকে বিশ্রাম দিতে হয়। কিন্তু এটা করা হচ্ছে না। কারণ ঘরোয়া ক্রিকেটে শর্টার ভার্সনে বেশি খেলা হচ্ছে। মাঠের স্বল্পতা ও উন্নত মানের উইকেট না পাওয়ায় ভালো মানের পেসাররা ভালো কিছু করে দেখাতে পারছে না।’

ফতুল্লা টেস্টের প্রথম দিন ভারতের বিপক্ষে সাত বোলার ব্যবহার করেও স্বাগতিক দল ছিল উইকেটশূন্য। সাত বোলারের মধ্যে ছয়জনই স্পিনার। মুশফিকুর রহিম একাদশ সাজিয়েছেন মাত্র এক পেসার নিয়ে। যাকে নেওয়া হয়েছে সেই মোহাম্মদ শহীদ আগে খেলেছেন মাত্র ২টি টেস্ট ম্যাচ। ভারতের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপের বিপরীতে কোনো প্রতিরোধই গড়ে তুলতে পারেননি শহীদ। ১২ ওভারে খরচ করেছেন ৫২ রান।

উইকেট নিয়ে রকিবুল হাসানের বক্তব্য, ‘প্রায় বিশ বছর ধরে বাংলাদেশে যে উইকেটগুলোয় খেলা হচ্ছে সেগুলো পেস বোলারদের জন্য সহায়ক হচ্ছে না। পেস বোলারদের জন্য উইকেটে একটু বাউন্স থাকা উচিত -এটা কখনোই হচ্ছে না।’

এদিকে ভালো মানের পেস বোলার বের করে আনতে পেস ক্যাম্পে জোর দেওয়ার কথা জানিয়েছেন রকিবুল হাসান। পাশাপাশি উদীয়মান ক্রিকেটারদের পেস বোলিংয়ে আগ্রহী করাতে উপদেশও দিয়েছেন জাতীয় দলের প্রাক্তন এই ক্রিকেটার। রকিবুল হাসান বলেন, ‘পাশাপাশি নতুন যারা খেলছে তাদের যেন পেস বোলিংয়ের প্রতি আগ্রহ তৈরি হয়। তাদেরকে উৎসাহিত করতে হবে। জাতীয় দলে খেলার সময়ও পেস বোলারদের দলে নিতে হবে। এমনটা না হলে কেউ পেস বোলার হতে চাইবে না।’

তথ্যসূত্র: বিবিসি