মেইন ম্যেনু

পে-স্কেল পুন:নির্ধারণের দাবিতে রাবি শিক্ষকদের কর্মবিরতি পালিত

প্রস্তাবিত অষ্টম জাতীয় পে-স্কেল পুন:নির্ধারণের দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শিক্ষক সমিতি কর্মবিরতি ও অবস্থান ধর্মঘট পালন করেছে। সোমবার বেলা ১১ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের সামনে ৪ দফা দাবিতে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

দাবিসমূহ হলো: চলতি মাসের মধ্যে শিক্ষকদের স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো প্রণয়নের ঘোষণা এবং অতিসত্ত্বর বাস্তবায়ন; সিলেকশন গ্রেডপ্রাপ্ত অধ্যাপকদের বেতন ভাতা সিনিয়র সচিবদের সমতুল্য করা; অধ্যাপকদের বেতন-ভাতা পদায়িত সচিবদের সমতুল্য করা; সহযোগী অধ্যাপক, সহকারী অধ্যাপক ও প্রভাষকদের বেতন কাঠামো ক্রমানুসারে নির্ধারণসহ শিক্ষকদের যৌক্তিক বেতন স্কেল
ও মর্যাদা নিশ্চিত করা।

অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচিতে রাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড.আনন্দ কুমার সাহার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন রাবির ইতিহাস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সৈয়দ মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী, ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. জাহিদুল ইসলাম, প্রাণিবিদা বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. হাবীবুর রহমান, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. ফজলুল হক, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক মো. মামুন আ. কাইয়ুম প্রমুখ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ৫’শ শিক্ষকবৃন্দ।

এ সময় বক্তারা আশা প্রকাশ করে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাবিত বেতন-কাঠামো শিক্ষকদের জন্য অবমূল্যায়নকর প্রস্তাবগুলো প্রত্যাহারপূর্বক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মূল্যায়ন করবেন। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের বেতন-কাঠামো পুন:নির্ধারণ করে তাদের যথাযথ মর্যাদা নিশ্চিত করার জন্য তারা আহ্বান জানান।

প্রসঙ্গত, প্রস্তাবিত অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোতে মন্ত্রিপরিষদ বা মূখ্যসচিব ও সিনিয়র সচিবদের বেতন দ্বিগুন করে পদায়িত সচিবদের জন্য একটি বেতন স্কেল করা হয়েছে। কিন্তু সিলেকশন গ্রেড ও টাইম স্কেল না দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের বেতন স্কেল সচিবদের চেয়ে দু’ধাপ নামানো হয়েছে।