মেইন ম্যেনু

প্যান্টের পকেটে মোবাইল : সাবধান! বাড়ছে বন্ধ্যাত্ব

৪৭ শতাংশ পুরুষের বন্ধ্যাত্বের জন্য মোবাইল দায়ী! ঘাবরে গেলেনতো? এমন খবরই দিয়েছে ব্রিটেনের এক দল চিকিত্‍সক। তারা বলছেন, দিনে ১ ঘণ্টা পকেটে মোবাইল রাখলেই তা থেকে নির্গত রেডিয়েশনে শরীরে থাকা বীর্য এবং অণ্ডকোষের ওপর বড় রকমের প্রভাব ফেলছে।

এর প্রভাবে হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়া বছরে শতাধিক ব্যক্তিদের ওপর পর্যবেক্ষণ করেছে দলটি। চিকিত্‍সকরা জানাচ্ছেন, এতে বীর্য প্রায় সেদ্ধ হয়ে যায়। মাত্রাতিরিক্ত হারে বীর্য তৈরি কমিয়ে দেয়। যার কারণে ধীরে ধীরে বন্ধ্যাত্ব দেখা যায় পুরুষদের মধ্যে।

দলের একজন ইসরাইলের হায়ফার প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয় টেকনিয়ন ইউনিভার্সিটির প্রফেসর মার্থা ডার্নফেল্ডের মতে, ‘ফোন বেশি ক্ষণ পকেটে রাখলে তা স্বাভাবিক কারণেই গরম হয়ে যায়। এটা তো একটা কারণ বটেই। তার সঙ্গে যুক্ত হয় মোবাইল থেকে নির্গত ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক তরঙ্গ। এই দুইয়ের প্রভাবে পুরুষদের মধ্যে বন্ধ্যাত্বের প্রবণতা বেশি দেখা যাচ্ছে।’ একই রকমভাবে বছর কয়েক আগেই একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছিল, যারা কোলের ওপর বসিয়ে ল্যাপটপ নিয়ে কাজ করেন, তারাও বন্ধ্যাত্বের শিকার হচ্ছেন।

তবে মোবাইলের ক্ষেত্রে প্রভাব আরও ভয়ঙ্কর। শুধু পকেটে নয়, শরীর থেকে ফুট খানেকের মধ্যে মোবাইল রাখলেও তার ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক তরঙ্গেহাত থেকে বাঁচা যায় না। অনেকে রাতেও মোবাইল মাথার পাশে বা পকেটে নিয়ে ঘুমোন, তাঁদের ক্ষেত্রে সমস্যা আরও বেশি হয়। মহিলাদের ক্ষেত্র এর প্রভাব তেমন হয় না, তার প্রধান কারণ মহিলারা মোবাইল সাধারণত ব্যাগের মধ্যেই রাখেন। সুত্র : টেলিগ্রাফ