মেইন ম্যেনু

প্যারাগুয়েকে গুঁড়িয়ে ফাইনালে আর্জেন্টিনা

কোপা আমেরিকার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে গোল উৎসব করেছে আর্জেন্টিনা। ডি মারিয়া, হিগুয়েন, আগুয়েরো, পাস্তোর ও রোজোর গোলে প্রতিযোগিতার ফেবারিটরা ৬-১ ব্যবধানে প্যারাগুয়েকে গুঁড়িয়ে দিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে।

স্টাডিও মিউনিসিপাল আলকাল্ডেসা ইস্টার রোয়া রেবোলেডো স্টেডিয়ামে বুধবার ভোরে একতরফা ম্যাচে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে অসহায় দর্শকের ভূমিকায় দেখা গেছে প্যারাগুয়েকে। গ্রুপপর্ব থেকে কোয়ার্টার ফাইনাল অবধি অসাধারণ খেলা প্যারাগুয়েকে খুঁজে পাওয়া যায়নি মেসিদের বিপক্ষে ম্যাচে। গোছানো ও পাল্টা আক্রমণের জন্য এই টুর্নামেন্টে বাড়তি কদর ছিল তাদের। কিন্তু গেরার্ডো মার্টিনোর দলের বিপক্ষে এমন কৌশল কাজে লাগাতে পারেনি ডিয়াজের শিষ্যরা।

দুরন্ত ফর্মে থাকা আর্জেন্টাইন দলের সামনে কোনোভাবেই নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি প্যারাগুয়ে। খেলায় গোল করতে পারেননি অধিনায়ক মেসি। কিন্তু আগের ম্যাচগুলোর মতো এই ম্যাচেও অসাধারণ পারফর্ম করেছেন। ৩টি গোলের যোগান দিয়েছেন বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড।

খেলার ১৫ মিনিটে গোলের দেখা পেয়েছে আর্জেন্টিনা। জালে বল জড়িয়েছেন ম্যানেচস্টার ইউনাইটেডের ডিফেন্ডার রোজো। মেসির পাস থেকে গোল করেছেন তিনি। ২৭ মিনিটে ৪ বার ফিফা ব্যালন ডি’ওর জয়ী মেসির ক্রস থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেছেন পাস্তোর। পর পর দুই গোল হজমের পর ৪৩ মিনিটে একটি গোল শোধ করে প্যারাগুয়ে। তাই এই অর্ধে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় আর্জেন্টিনা।

বিশ্রামের পর আরও ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে আর্জেন্টিনা। এই অর্ধে প্রতিপক্ষের জালে আরও ৪ বার বল জড়িয়েছে ২০১৪’র বিশ্বকাপের ফাইনালিস্টরা। জোড়া গোল করেছেন ডি মারিয়া (৪৭ ও ৫৩ মিনিট)। এ ছাড়া একটি করে গোল করেছেন সার্জিও আগুয়েরো (৮০ মিনিট) ও হিগুয়েন (৮৩ মিনিট)। এর মাধ্যমে লম্বা সময় পর শিরোপা জয়ের সুযোগ এসেছে মেসিদের সামনে। সর্বশেষ ১৯৯৩ সালে প্রতিযোগিতার ট্রফি জিতেছিল আর্জেন্টিনা। আগামী ৫ জুলাই টুর্নামেন্টের ফাইনালে তারা মুখোমুখি হবে আয়োজক চিলির।