মেইন ম্যেনু

প্রতারক সব সময়ই প্রতারক, মিলল বৈজ্ঞানিক প্রমাণ

অনেকের মতে, খুন বা ডাকাতির চেয়ে কোনো অংশে কম নয় সম্পর্কে প্রতারণা। দুজন নারী-পুরুষ সম্পকে আবদ্ধ হলে তাদের সুখী চেহারা আর অনাবিল হাসি অনেক সৌন্দর্যকেই হার মানায়। কিন্তু বিভিন্ন জরিপ বলছে, এদের অর্ধেকের বেশি প্রতারণার কারণে বিচ্ছেদের স্বাদ পায়। প্রতারকদের বিষয়ে বহুল প্রচলিত একটি ধারণাকে এবার সমর্থন দিয়েছে বিজ্ঞান। বলা হচ্ছে, একবার যে প্রতারণা করে সে সব সময়ই এই প্রবঞ্চণার আশ্রয় নেয়। অর্থাৎ, প্রতারক সব সময়ই প্রতারক।

গবেষণায় বলে, অনেক মানুষ সম্পর্কে প্রতারণা করতেই ভালোবাসেন। এটা একাধিক কারণে ঘটতে পারে। হয়তো তারা আরো ভালো সঙ্গী-সঙ্গিনী খুঁজে পেয়েছেন। এমন মানুষের দেখা পেয়েছেন যার সঙ্গে তার সময় আরো ভালো যায়। কিংবা সে ঠিক যে জীবন কাটাতে চায়, নতুন মানুষটি তেমনই। অথচ এই প্রতারক মনের মানুষগুলো ধরা খেলেই বিধ্বস্ত হয়ে পড়েন।

এখানে মনের যত সূক্ষ্ম বিষয় বাদ দেওয়া যাক। বিজ্ঞান কী বলছে তা জানি আগে। সাম্প্রতিক এক বৈজ্ঞানিক গবেষণায় বলা হয়, প্রতারণা এমন কাজ নয় যা একবারই করা যায়। বরং যে একবার এ কাজ করেছে, সে বার বার তা করতে চাইবে। প্রবঞ্চকের মস্তিষ্ক এর সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়।

এ গবেষণায় মস্তিষ্কের অ্যামিগডালা অংশে মন দেওয়া হয়। এই অংশ নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখায়। এটা সেই অংশ যা মানুষের আবেগ নিয়ে কাজ করে। সংকেত গ্রহণ, প্রক্রিয়াজাতকরণ আর উত্তেজনা এখানেই সৃষ্টি হয়। একটা মানুষ যতবার প্রতারণা করতে গিয়ে ধরা পড়েন, তার অনুতাপের প্রতিক্রিয়া তত বেশি কমতে থাকে।

গবেষণাকর্মে আরো বলা হয়, প্রতারক ধরা পড়ার পর তার মাঝে অনুশোচনা কাজ করে। কিন্তু আবারো একই কাজ করতে দ্বিধা কমে যায়। দ্বিতীয়বারের মতো ধরা খেলে অনুশোচনা আরো কমে আসে। এভাবে এক পর্যায়ে সে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে। কাজেই যে একবার এ কাজ করেছে, সে তা বার বার করবে এবং দ্বিধাহীনভাবে করে যাবে। এভাবে প্রতারক সব সময়ই প্রতারক থেকে যায়। সূত্র ইন্ডিয়া টাইমস






মন্তব্য চালু নেই