মেইন ম্যেনু

প্রতারণার প্রেমের ফাঁদ মোবাইলে

ট্টগ্রাম নগরীতে চার নারী প্রতারককে গ্রেফতার করেছে হালিশহর থানা পুলিশ। গতকাল ভোর ৬টার দিকে তাদের হালিশহর আবাসিক এলাকার বি ব্লকের খালপাড়ে সুন্নিয়া মাদ্রাসার পেছনে একটি বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়।

মোবাইলে যুবকদের প্রতারণার ফাঁদে ফেলে টাকা-মোবাইল হাতিয়ে নেয়াই ছিল তাদের পেশা। গ্রেফতার হওয়া চারজন হলেন— বিবি কুলসুম (৪০), পারভীন বেগম আঁখি (২৫), মুক্তার বেগম (২৭) এবং জরিনা বেগম (৫০)। হালিশহর থানার ওসি প্রণব চৌধুরী একটি ঘটনা প্রসঙ্গে জানান, নগরীর আইস ফ্যাক্টরি রোডের সাদেক নামের এক যুবকের সঙ্গে বিবি কুলসুমের টেলিফোনে পরিচয় হয়। এরপর থেকে তারা নিয়মিত কথাবার্তা বলত। গত শনিবার সাদেককে বিবি কুলসুম তাদের বাসায় যাওয়ার জন্য দাওয়াত দেয়।

সাদেক তার এক বন্ধুসহ হালিশহর আবাসিক এলাকার বি ব্লকের খালপাড়ে সুন্নিয়া মাদ্রাসার পেছনে বিবি কুলসুমের বাসায় যায়। বাসায় ঢোকার পর কয়েকজন নারী-পুরুষ এসে তাদের বেঁধে ফেলে। এ সময় দুজন নারী নগ্ন অবস্থায় এসে তাদের পাশে বসে। তাদের ছবি তোলা হয়। এরপর ছবিগুলো ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে ৫০ হাজার টাকা দাবি করা হয়। কিন্তু তারা এত টাকা দিতে অপরাগতা ?জানায়।

পরে বিকাশের মাধ্যমে পাঁচ হাজার টাকা আদায় করা হয়। এইসঙ্গে ১০০ টাকার স্ট্যাম্পে সাদেকের স্বাক্ষর নিয়ে রাতে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। সাদেকের মোবাইল ফোনটিও কেড়ে নেওয়া হয়। পরে সাদেক হালিশহর থানায় এসে এ বিষয়ে অভিযোগ করার পর অভিযানে নামে পুলিশ।

গভীর রাতে ওই বাসায় অভিযান চালিয়ে প্রথমে বিবি কুলসুমকে আটক করা হয়। তারপর বাকি তিনজনকে আটক করা হয়। বিবি কুলসুমের কাছ থেকে সাদেকের মোবাইলটি উদ্ধার করা হয়। ওসি বলেন, প্রতারক চক্রে আরও ৪-৫ জন নারী-পুরুষ আছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।