মেইন ম্যেনু

প্রতিদিনই নিয়ম করে ফাঁসিতে ঝোলেন তিনি

তাকে কোনো কারণে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে কোনো লাভ হবে না! কেননা নিয়মিতই ফাঁসিতে ঝোলেন তিনি, প্রতিদিন! এবং দিব্যি বেঁচে-বর্তে থাকেন। এমনই বিচিত্র তিনি, তার স্বভাব-চরিত্র, জীবন। এই অদ্ভুত মানুষটি একজন চাইনিজ মার্শাল আর্টিস্ট। নাম লি লিয়ানজিবিন।

লি বাস করেন চীনের উত্তরের সানডং প্রদেশের লিজহুয়াং গ্রামে। তিনি তার গলা ও ঘাড়কে এতটাই শক্ত করে ফেলেছেন যে গাছ থেকে দড়ি দিয়ে ঝুলে থাকলেও তার শ্বাস-প্রশ্বাসের চলাচলে কোনো সমস্যা হয় না।

লি লিয়ানজিবিন নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়তই গাছে ঝুলে ফাঁসি অনুশীলন করেন। ৪৯ বছর বয়সী লি জানান, তিনি তার ঘাড় শক্ত করার জন্য এই অনুশীলন করে আসছেন তরুণ বয়স থেকে। তিনি ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায়ও স্বাভাবিকভাবেই নিশ্বাস নিতে পারেন। তিনি আরও বলেন, তিনি যুবক বয়স থেকে কুমফু বিজ্ঞান অনুশীলন করেন এবং তিনি এখন এই বিষয়ের একজন শিক্ষক হওয়ার পরও এই অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি ১০ বছর ধরে এই অনুশীলন করে আসছেন। গাছে ঝোলার এই অনুশীলন করার জন্য অনেক বেশি মানসিক শক্তি ও সাধনা প্রয়োজন।

লি বলেন, এই অনুশীলনটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। তাই বাসায় যেন কেউ এটা অনুশীলন না করে সেজন্য আমি সবাইকে সতর্ক করে দিই। এই অনুশীলন করা খুবই বিপদজনক এবং এটা করার জন্য প্রচুর পরিশ্রমের দরকার। তিনি আরও জানান, তিনি প্রতিনিয়তই শরীরচর্চার নতুন-নতুন পদ্ধতি আবিষ্কারের চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

লি’র ভাষ্য- কুমফুই তার জীবন এবং এবং এর জন্য নতুন নতুন ঝুঁকি নিতে তিনি প্রস্তুত। সবাই কুমফু বলতে শুধু বড়বড় দালানকোঠা থেকে লাফ দেয়াকেই বোঝে। কিন্তু গাছে ঝুলে বেঁচে থাকা কুমফু জগতের একটি নতুন আবিস্কার।