মেইন ম্যেনু

প্রতিদিনের খাবার তালিকায় থাকা চাই দই

এমনিতেই দই একটি লোভনীয় খাবার। কিন্তু প্রতিদিনের খাবার তালিকায় তার তেমন উপস্থিতি দেখা যায় না।

খাবারের বিশেষ আয়োজন থাকলে বা অতিথি আপ্যায়নের সঙ্গে নিজেদের খাওয়াটা সেরে নেয়া হয়। অথচ আমাদের শরীরকে নানা রোগ প্রতিরোধে ক্ষমতাবান করতে দইয়ের কার্যকারিতা অপরিসীম। প্রতিদিন এক কাপ দই খেলে আমাদের শরীর রক্ষা পেতে পারে জটিল অনেক রোগ থেকে। তাই আসুন জেনে নেয়া যাক দইয়ের স্বাস্থ্য উপকারীতা সম্পর্কে।

* দই এ আছে প্রচুর পরিমানে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি। ফলে নিয়মিত দই খেলে দাঁত ও হাড় মজবুত থাকে।

* টক দই রক্তের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে দেয়।

* দই রক্ত থেকে বিষাক্ত উপাদান কমিয়ে দিয়ে রক্তকে বিশুদ্ধ করে তোলে।

* দই হজমে সহায়ক তাই রোজ পরিমিত পরিমান দই খেলে হজম ও গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমে যায়।

* সম্প্রতি গবেষনা থেকে জানা গেছে প্রতিদিন পরিমিত দই খেলে ক্যান্সারের মত মারনরোগ আটকানো যায়।

* দইয়ে থাকা ল্যাকটিক অ্যাসিড কোষ্ঠ্যকাঠিন্যের সমস্যাকে দূর করতে খুবই পারদর্শী।

* উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা সমাধানে দই অনেক উপকারী।

* দই দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। নিয়মিত দই খেলে খুব সহজেই জ্বর কিংবা ঠাণ্ডা লেগে যাওয়ার সমস্যা কমে যায়।

* দই শরীরকে ঠাণ্ডা রাখতে সহায়তা করে। প্রচণ্ড গরমের সময়ে দই খেলে শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

* ওজন জনিত সমস্যায় ভুগলে অবশ্যই টকদই খান- উপকার পাবেন।