মেইন ম্যেনু

প্রতিবছর ১০০ কন্যার বিনামূল্যে বিয়ে!

ব্যবসায়ী ব্যক্তিদের বিয়ে মানেই যেন ব্যাপক শোরগোল। আর ব্যবসায়ীদের ছেলেমেয়েদের যখন বিয়ে দেয়া হয়, তখন তো কে কত বেশি টাকা খরচ করল তা নিয়ে শুরু হয়ে যায় ভোটাভোটি। তবে এবার একজন সত্যিকারের ব্যবসায়ীর দেখা মিলল।

ভারতের সুরাতের একজন সুনামধন্য ব্যবসায়ী গোপাল ভাস্তাপারা গত ফেব্রুয়ারি মাসে নিজের ছেলের বিবাহ সম্পন্ন করেন। তিনি খুব সাধারণভাবে নিজের ছেলের বিয়ে করান। মাত্র ৩০০ অতিথির উপস্থিতিতে এই বিয়ে সম্পন্ন করা হয়, যার মাঝে বেশিরভাগই আত্মীয়স্বজন ছিলেন।

৫১ বছর বয়সী এই ডেভেলপার ব্যবসায়ী নিজ ছেলের বিয়ের কাজ শেষ হবার পরপর আবার পুরো ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। তিনি সমাজের ১০০ জন গরীব, অবহেলিত, নির্যাতিত ও নিপীড়িত মেয়েদের বিয়ে দেয়ার দায়িত্ব নিয়েছেন।

এপ্রিলের ২৮ তারিখে তার গ্রামের মেয়েদের একসাথে বিয়ে করাবেন তিনি। গোপাল তার পাশের গ্রাম চামারদিতে এই বিবাহের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করবেন। তিনি আমরেলি ও রাজকোটে সে সকল মেয়েদের খুঁজে বের করেন। যাদের তার পরিবার টাকার অভাবে বিয়ে করাতে পারছিলেন না।

গোপাল বলেন, ‘আমরা আমাদের ছেলের বিয়ে খুব সাধারণভাবে এজন্য করিয়েছি যেন সেই টাকা দিয়ে গ্রামের দরিদ্র ১০০ জন মেয়েকে বিয়ে দিতে পারি। এসকল মেয়েদের মাঝে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী রয়েছে। ৬ জন মুসলমান কন্যাও রয়েছেন এই ১০০ জনের তালিকায়।’

অন্যান্য সকল বিয়েতে যেমন পরিবারের লোকেরা উপস্থিত থাকে, ঠিক সেভাবে গোপাল সেই ১০০ জন কন্যাকে ও তাদের হবু বরকে নিজেদের সকল বন্ধুবান্ধবদের দাওয়াত করতে বলেছেন। এতে সেদিন ৬০,০০০ জন অতিথি আসবে বলে জানা গেছে। ১০০ কন্যার বিয়ে দিতে গোপালের ৩ কোটি টাকা খরচ করতে হবে।

গোপাল আগামী ১০ বছর এভাবে ১০০ জন মেয়ের বিয়ে দিবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য এই বিপ্লবী পন্থা চিন্তা করেছেন।–সুত্র: ইন্ডিয়া টাইম্‌স।