মেইন ম্যেনু

প্রতিমন্ত্রীর মোবাইল কনফারেন্সে লামার ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন

লামা উপজেলায় পাঁচবারের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে নগদ অর্থ, ত্রিপল ও স্যালাইন বিতরণ করে এনজিও একতা মহিলা সমিতি লামা ও রেডক্রিসেন্ট বান্দরবান ইউনিট।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১ ঘটিকার সময় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি মোবাইল কনফারেন্সের মাধ্যমে ডব্লিউএফপি’র অর্থায়নে একতা মহিলা সমিতি’র উদ্যোগে নগদ টাকা বিতরণ অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন। মন্ত্রী ফোনালাপে ক্ষতিগ্রস্থদের উদ্দেশ্যে বলেন, ৫ বারের বন্যায় ও পাহাড় ধসে লামা উপজেলার মানুষ প্রচুর ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এ অকল্পনিয় ক্ষতির মাঝেও সরকার এবং বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থার সহায়তায় নগদ অর্থ ও ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত আছে। আগামীতেও এই ত্রাণ কার্যক্রম চলমান থাকবে।

লামা উপজেলার বে-সরকারী উন্নয়ন সংস্থা একতা মহিলা সমিতি’র উদ্যোগে লামা উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের গজালিয়া বাজারে ৪শত ও গতিরাম ত্রিপুরা পাড়ায় ২শত পাহাড় ধস ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের পরিবারের মাঝে নগদ ৩ হাজার টাকা দেয়া হয়। উল্লেখ্য, পাহাড় ধস ও বন্যায় উক্ত ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে আরো দুই দফায় প্রতি জনকে ৩ হাজার করে ৬ হাজার টাকা দেয়া হবে।

নগদ টাকা বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, লামা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ ইসমাইল। বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গজালিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বাথোয়াই চিং মার্মা। আরো উপস্থিত ছিলেন, একতা মহিলা সমিতির নির্বাহী পরিচালক আনোয়ারা বেগম, ডব্লিউএফপি’র সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার এলোরা চাকমা, ডব্লিউএফপি বান্দরবান প্রতিনিধি রেবতি চাকমা, উদয়ন খীসা, একতা মলিা সমিতির প্রোগ্রাম মনিটরিং অফিসার ও লামা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ কামালুদ্দিন, একতার ম্যালেরিয়া প্রোগ্রাম অফিসার ফরহাদ হোসেন প্রমূখ।

এছাড়া রেডক্রিসেন্টের উদ্যোগে ২৭ আগষ্ট বৃহস্পতিবার বেলা ২ ঘটিকায় লামা বাজারস্থ জেলা পরিষদ গেষ্ট হাউজ দ্বিতীয় তলায় ৪শত দুস্তদের মাঝে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও রেডক্রিসেন্ট বান্দরবান ইউনিটের সভাপতি ক্য শৈ হ্লা মার্মা। রেডক্রিসেন্টের পক্ষ থেকে প্রতিজনকে নগদ ৩ হাজার টাকা, ১০টি স্যালাইন ও ১টি করে ত্রিপল দেয়া হয়।