মেইন ম্যেনু

প্রতীক নিয়ে প্রচারণা শুরু আজ

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে আজ সোমবার থেকে প্রতীক নিয়ে আনুষ্ঠানিক প্রচারণায় নামছেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা। এর মাধ্যমে দীর্ঘ সাত বছর পর ভোটের লড়াইয়ে মুখোমুখি দেশের বৃহৎ দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। তাই বিভিন্ন এলাকায় বইছে নির্বাচনী হাওয়া।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, সোমবার বিভিন্ন পৌরসভায় রিটার্নিং কর্মকর্তারা প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া শুরু করেছেন। এর আগে গত ৯ ডিসেম্বর থেকে প্রার্থীরা প্রতীক ছাড়া জনসংযোগ-পথসভা শুরু করেছেন।

প্রচারণার বিষয়ে জানতে চাইলে ইসি সচিব বলেন, প্রতীক পাওয়ার পরপরেই প্রার্থীরা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে পারবেন। সেই সঙ্গে রাজনৈতিক দল মনোনীত প্রার্থীরাও তাদের নিজ দলের প্রতীক নিয়ে প্রচারণায় নামতে পারবেন।

নির্বাচনী আচরণবিধির পাঁচ নম্বর বিধিতে বলা হয়েছে- কোনো প্রার্থী বা রাজনৈতিক দল কিংবা তার মনোনীত/স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে অন্য কোনো ব্যক্তি-সংস্থা অথবা প্রতিষ্ঠান ভোটগ্রহণের জন্য নির্ধারিত দিনের তিন সপ্তাহ সময়ের পূর্বে কোনো প্রকার নির্বাচনী প্রচার শুরু করতে পারবে না।

ইসি ঘোষিত তফসিল অনুসারে, আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সে অনুযায়ী, ৩০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণের দিন থেকে আগের তিন সপ্তাহ সময় বলতে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়কে বোঝানো হয়েছে। আর প্রচারণা বন্ধ করতে হবে ভোটগ্রহণ শুরুর ৩২ ঘণ্টা আগে। অর্থাৎ ২৮ ডিসেম্বর রাত ১২টার পর আর প্রচারণা চালানো যাবে না।

কমিশন সূত্রে আরো জানা গেছে, আচরণবিধি মেনে চলতে নির্বাচনে অংশ নেওয়া দলগুলোর কাছে, সংসদ সদস্য ও মন্ত্রীদের বিষয়ে সংসদ সচিবালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে চিঠি দেওয়া হয়েছে। প্রার্থী ও ভোটাররা আচরণবিধি যেন অনুসরণ করেন, সে ব্যবস্থা নিতে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের বলা হয়েছে। এ ছাড়া ইতিমধ্যে তিন সংসদ সদস্য আচরণবিধি লঙ্ঘন করায় শোকজ করা হয়েছে, তারা জবাবও দিয়েছেন। আগামীতে সবাই যথাযথভাবে নির্বাচনী আচরণবিধি পালন করবেন, সবার কাছে এমনটিই প্রত্যাশা করেন ইসি সচিব।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, আচরণবিধি অনুসারে পোস্টার ছাপানো, টানিয়ে রাখা, বাড়ি বাড়ি গিয়ে অথবা ঘরোয়া ও পথসভার মাধ্যমে জনসংযোগ, ডিজিটাল বোর্ড বা ইলেকট্রনিক মাধ্যমে প্রচারণা চালানোর সুযোগ পাবেন প্রার্থীরা। পোস্টারে প্রার্থীর ছবি ও প্রতীক সাদা-কালো রঙের, দলীয় প্রার্থীর সঙ্গে দলীয় প্রধানের ছবি রাখার সুযোগ রয়েছে এবং নির্ধারিত সাইজে প্রতীক তৈরি করে প্রচারণা চালাতে পারবেন প্রার্থীরা।

উল্লেখ্য, প্রথমবারের মতো পৌরসভা নির্বাচনে দলীয়ভাবে মেয়র পদে প্রার্থী দিয়েছে ১৯টি রাজনৈতিক দল।