মেইন ম্যেনু

প্রথমবারের মতো প্রতিস্থাপিত হলো পুরো মুখমণ্ডল

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে এযাবৎকালের সবচেয়ে ব্যাপক মুখমণ্ডল প্রতিস্থাপনের অস্ত্রোপচার সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে সম্পূর্ণ মাথার চামড়া, কান, এমনকি চোখের পাতাও প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

এনওয়াইইউ ল্যাংঅন মেডিক্যাল সেন্টারের বরাত দিয়ে সোমবার এক প্রতিবেদনে বিবিসি এ তথ্য জানিয়েছে।

অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ৪১ বছর বয়সি অগ্নিনির্বাপণকারী প্যাট্রিক হ্যারিসনের সম্পূর্ণ মুখমণ্ডল প্রতিস্থাপন করা হয়। আগুনে আটকে পড়া এক নারীকে উদ্ধার করতে গিয়ে তার মুখমণ্ডল পুড়ে গিয়েছিল। মুখমণ্ডল প্রতিস্থাপনের জন্য এক বছরেরও বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে হ্যারিসনকে। কারণ এর জন্য প্রয়োজন ছিল একজন মুখমণ্ডলদাতা। শুধু দাতা হলেই চলবে না, তার সঙ্গে রক্ত, চামড়া ও চুলের ম্যাচেরও প্রয়োজন ছিল।

প্রতিস্থাপনের জন্য মুখমণ্ডলটির দাতা ২৬ বছর বয়সি যুবক ডেভিড রোডবাগ, গত অাগস্টে সাইকেল চালানোর সময় দুর্ঘটনায় মারা যান। জীবদ্দশায় তিনি মরণোত্তর দেহদানের অঙ্গীকার করেছিলেন।
গত অাগস্টে অস্ত্রোপচারটি সম্পন্ন হলেও রোববারই এটি প্রকাশ করা হয়।

প্লাস্টিক সার্জন এদুয়ার্দো রদ্রিগেজের নেতৃত্বে একদল চিকিৎসক ২৬ ঘণ্টাব্যাপী এই জটিল অস্ত্রোপচারটি সম্পন্ন করেন।

চিকিৎসক এদুয়ার্দো রদ্রিগেজ বলেন, এই অপারেশনে যতগুলো টিস্যু প্রতিস্থাপন করা হয়েছে, এর আগে কোনো অপারেশনে এত টিস্যু প্রতিস্থাপন করা হয়নি।

প্রায় ১০ লাখ ডলারের সেই অস্ত্রোপচারের তিন মাস পর প্যাট্রিক হ্যারিসন ভালোভাবেই সেরে উঠছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তবে তার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা যেন প্রতিস্থাপিত টিস্যুকে প্রত্যাখ্যান করতে না পারে, সে জন্য তাকে বাকি জীবন অ্যান্টি-রিজেকশন ওষুধ গ্রহণ করতে হবে।