মেইন ম্যেনু

প্রথমবার নিশ্চিন্তে বিমানযাত্রা করার দশটি টিপ্‌স

দেশের মধ্যে যাত্রা হোক বা বিদেশে। প্রথমবার বিমানে চড়ার আগে কিছুটা টেনশন তো থাকেই। সেই টেনশন কাটানোর জন্যই থাকল দশটি টিপ্‌স।

দেশের মধ্যে যাত্রা হোক বা বিদেশে। প্রথমবার বিমানে চড়ার আগে কিছুটা টেনশন তো থাকেই। সেই টেনশন কাটানোর জন্যই থাকল দশটি টিপ্‌স।

১. কতটা লাগেজ নিতে পারবেন, সেটা ভাল করে জেনে নিন।

২. কোন ধরনের খাবার পছন্দ করেন, (নিরমিষ অথবা আমিষ) সেটা জানিয়ে দিন।

৩. টিকিট বুক করার সময়ে যাত্রার সময় এবং তারিখ ভাল করে দেখে নিন।

৪. বিমানে ওঠার আগে নিজের সব লাগেজে নিজের নাম, ঠিকানা অবশ্যই লিখে রাখুন।

৫. ট্রাভেল এজেন্টের মাধ্যেম টিকিট কাটুন। হয়তো কিছু ছাড় পেতে পারেন।

৬. হাতের কাছে প্রয়োজন এমন টুকটাক জিনিস ছোট ব্যাগে রাখুন। মনে রাখবেন, এই ব্যাগের মাপ এমন হতে হবে যা কেবিন স্পেসের মধ্যে এঁটে যায়।

৭. নিরাপত্তাজনিত পরীক্ষার পরে বিমানবন্দরে আপনার লাগেজে সেফটি চেকড স্টিকার লাগিয়ে নিতে হবে। আপনার লাগেজের উপরে সঠিক নাম, গন্তব্য লেখা আছে কি না, সেটা দেখে নিন।

৮. বিদেশ যাত্রা করলে বিমানবন্দরে আপনাকে ইন্ডিয়া ডিপারচার এমবারকেশন ফর্ম দেওয়া হবে। সেটি সঠিকভাবে পূরণ করুন। কোনও সংশয় থাকলে বিমানসংস্থার কর্মীদের সাহায্য নিন।

৯. বিদেশ যাত্রার ক্ষেত্রে এরপরে ইমিগ্রেশন অফিসার আপনার পাসপোর্ট, ভিসা, বোর্ডিং পাস, টিকিট এবং এমবারকেশন ফর্ম চাইবেন। এর সঙ্গে কেন বিদেশ যাত্রা করছেন-সহ কয়েকটি সাধারণ প্রশ্ন করবেন তিনি। ইমিগ্রেশন অফিসার এমবারকেশন ফর্মটি বাদে বাকি জিনিসগুলি আপনাকে ফেরত দিয়ে দেবেন। ইমিগ্রেশন অফিসারই পাসপোর্টে স্ট্যাম্প মেরে দেবেন।

১০. কাস্টমস অফিসার আপনার বোর্ডিং পাসে স্ট্যাম্প মেরে দেবেন।

১১. গেট নম্বরটি ভাল ভাবে দেখে নিয়ে সেখানে গিয়ে বিমানে চড়ার জন্য অপেক্ষা করুন।

১২. বিমানে উঠে যাওয়ার পরে বিমানকর্মীদের নির্দেশিকা ভালভাবে শুনুন। মনে রাখবেন, বিমান একটি নির্দিষ্ট উচ্চতায় না উঠলে নিজের আসন ছেড়ে আপনি উঠতে পারবেন না। পাইলটই সিটবেল্ট সিগন্যাল অফ করে সেকথা জানিয়ে দেবেন।