মেইন ম্যেনু

প্রথম দর্শনেই জোর করে চুমু দেন ট্রাম্প

যৌন কেলেংকারির ঘটনায় বেশ বেকায়দায় রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প।

নারীদের সম্মতি ছাড়াই তাদের গায়ে হাত দেয়া ও চুমু দেয়ার ঘটনায় বেশ বিতর্কের মুখে পড়েছেন তিনি।

এখন পর্যন্ত আটজনের মতো নারী ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এনেছেন।

এবার তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছেন আরেক নারী। তার নাম ক্যাথি হেলার।

নিজের জীবনে ঘটে যাওয়া এ যৌন হেনস্তার ঘটনা ৬৩ বছর বয়সী হেলার পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করলেও এই প্রথম সবার সামনে আনলেন।

ক্যাথি হেলার জানান, প্রায় ২০ বছর আগে যখন ট্রাম্পের সঙ্গে তার প্রথম সাক্ষাৎ হয় তখন তিনি যৌন হয়রানির শিকার হন।

ট্রাম্প প্রথম দর্শনেই হেলারকে কাছে টেনে নেন। জোর করে চুমু দিতে চান। আর এ আহ্বানে সাড়া না দেয়ায় ট্রাম্প ক্ষেপেও গিয়েছিলেন বলে উল্লেখ করেন হেলার।

শেষ পর্যন্ত ট্রাম্প তাকে জোর করেই চুমু খান বলে দাবি করেন হেলার।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগেই নারীদের নিয়ে কুৎসিত ও নোংরা মন্তব্যের কারণে বেকায়দায় পড়েন ট্রাম্প।

পরে তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও নির্যাতনের অভিযোগ উঠলে অবস্থা আরও ঘোলাটে হয়ে পড়ে।

তবে ট্রাম্প এসব অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছেন।

বিভিন্ন বিতর্কে অংশ নিয়ে এ বিষয়ে গলা ফাটানোর পাশাপাশি রোববার এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে যেসব নারী অভিযোগ তুলেছেন তাদের সঙ্গে আমার কোনো কিছু হয়নি। নির্বাচনে আমাকে হারানোর জন্যই এসব অভিযোগ তোলা হয়েছে। যেখানে আমার চেয়ে নারীদের বেশি সম্মান কেউ করে না।’

ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার মুখপাত্র জ্যাসন মিলারও একই সুরে বলেছেন, হেলারের এ অভিযোগ কোনোভাবেই সত্য নয়।

এরআগে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ আনেন ক্রিস্টিন অ্যান্ডারসন, সামার জেরভস, সাবেক মিস ইউনিভার্স অ্যালিসিয়া মাচাদো, মিস অ্যারিজোনা টাশা ডিক্সন, জেসিকা লিডসসহ বেশ কয়েকজন নারী।

এছাড়া সম্প্রতি ২০০৫ সালের একটি ভিডিওচিত্র বের হয়। এতে দেখা যায়, ট্রাম্প নারীদের নিয়ে অবমাননাকর কথা বলেছেন।