মেইন ম্যেনু

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের ১০০ বছর পরে পেলেন সম্মান

প্রথম বিশ্বযুদ্ধে বীরোচিত ভূমিকা রাখার পরও এত দিন যথাযথভাবে সম্মান জানানো হয়নি, এমন দুজন বীর সেনাকে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান জানানো হলো। তাদেরকে মরণোত্তর ‘মেডেল অব অনার’ দেওয়া হয়েছে।

বিবিসি অনলাইনের এক খবরে মঙ্গলবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে মেডেল অব অনার প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এর আগে অবশ্য তাদেরকে এই সম্মান দিতে চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাদের প্রতি বৈষম্য করা হয়েছে, এমন অভিযোগে তারা তা প্রত্যাখ্যান করেন।

মেডেল অব অনারপ্রাপ্তরা হলেন- সার্জেন্ট ইউলিয়াম সেমিন ও প্রাইভেট হেনরি জনসন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ফ্রান্সে এ দুজন জীবন বাজি রেখে তাদের কমরেডদের জীবন বাঁচান। সাহসী সেই পদক্ষেপের জন্য তাদেরকে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান জানানো হলো।

সেমিন ইহুদি এবং জনসন আফ্রিকান বংশোদ্ভূত কৃষ্ণাঙ্গ। মেডেল হস্তান্তর অনুষ্ঠানে ওবামা বলেন, ‘সঠিক কাজটি করতে খুব বেশি দেরি হয়নি।’

তিনি আরো বলেন, উভয়ই তাদের জীবন বাজি রেখে অন্যদের জীবন রক্ষা করেছে।’ সেমিন আহত সৈনিকদের রক্ষা করতে বন্দুকযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন। জনসন জার্মানির হামলার মুখে একাই প্রতিরোধ গড়ে তোলেন।

সেমিন ও জনসনের পক্ষে তাদের ঘনিষ্টজনরা মেডেল গ্রহণ করেন। উল্লেখ্য, প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয় ১৯১৪ সালের ২৮ জুলাই এবং চার বছর তিন মাস দুই সপ্তাহ পরে ১৯১৮ সালের ১১ নভেম্বর শেষ হয়।

তথ্যসূত্র : বিবিসি ও নিউ ইয়র্ক টাইমস অনলাইন।