মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছেন রাখি সাবন্ত!

রাখি সাবন্তের হলটা কী? ইদানিং একেবারেই অভিনয়ের জন্য বোধহয় ডাক পাচ্ছেন না এই ‘কনট্রোভার্সি ক্যুইন’। তাই কখনও সানি লিওনকে ভারতে নিষিদ্ধ করার ডাক দিচ্ছেন, কখনও বা বাস্তবে ধর্ষণের জন্য সানিকে দায়ি করছেন— প্রচারে থাকার জন্য একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য করছেন রাখি। তার নয়া সংযোজন ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়।

শিনা বোরা হত্যাকাণ্ডে মূল অভিযুক্তকে ছে়ড়ে দেওয়ার জন্য নাকি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ এবং কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির সঙ্গে কথা বলেছেন রাখি! যদিও বিজেপি সূত্রে রাখির বক্তব্যের সমর্থনে কোনও খবর পাওয়া যায়নি।

রাখির কথায়, ‘‘স্মৃতি একজন মহিলা। তিনি ইন্দ্রাণীর কষ্ট বুঝবেন এবং ওকে সাহায্য করবেন। ইন্দ্রাণীকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য আমি নরেন্দ্র মোদি আর অমিত শাহের সঙ্গে কথা বলছি।’’ এখানেই থেমে থাকেননি তিনি। তার দাবি, শিনা হত্যা মামলার পিছনে কোনও ‘মাস্টারমাইন্ড’ আছেন। তাই তার বন্ধু ইন্দ্রাণী কোনও কারণ ছাড়াই কষ্ট পাচ্ছেন!

এই হত্যা মামলা নিয়ে বড়পর্দায় ‘এক কহানি জুলি থি’ নামের একটি ছবিতে অভিনয় করছেন রাখি। চেতনা এন্টারটেনমেন্টের প্রযোজনায় খুব তাড়াতাড়ি ফ্লোরে যাবে এই ছবি। যেখানে ইন্দ্রাণীর ভূমিকায় দেখা যাবে তাকে। দিন কয়েক আগেই তার দাবি ছিল, ‘‘আমি ইন্দ্রাণীকে অনেক দিন ধরে চিনি। ‘ইয়ে হ্যায় জলবা’ এবং ‘জলবা ফোর টু কা ওয়ান’ শো করতে গিয়ে ওর স্বামী পিটারের সঙ্গেও আমার পরিচয় হয়েছিল। আমিই ছিলাম ইন্দ্রাণীর সবচেয়ে পছন্দের অভিনেত্রী।’’

ইন্দ্রাণীকে অনেক কাছ থেকে চেনার সুবাদে তার স্ট্রেসফুল জীবন এবং টাকার পিছনে তার অবিরাম দৌড় রাখি সামনে থেকে দেখেছেন। তাই এই চরিত্রটি একমাত্র তিনিই পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে পারবেন বলে দাবি করেছিলেন। প্রায়শই বিতর্কিত মন্তব্য করে কি সেই ছবিরই প্রোমশন করছেন রাখি?