মেইন ম্যেনু

‘প্রধানমন্ত্রী পর্দাশীল ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক পর্দাশীল এবং তিনি ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধামন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম।

আজ শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে গণতান্ত্রিক ইসলামী ঐক্যজোট আয়োজিত ‘স্বাধীনতার পূর্বে ও পরে বাংলাদেশের ধর্মীয় অঙ্গনের অবস্থান’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তেব্য তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী রাতে নফল ও তাহাজ্জুতের নামাজ পড়েন এবং সকালে ফজরের নামাজ পড়ে দ্বীনের কাজে আরম্ভ করে। তাছাড়া তিনি কোরআন শরীফও পাঠ করেন।

বঙ্গবন্ধু প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন একজন খাঁটি মুসলমান। তিনিই বাংলাদেশে সর্ব প্রথম মদ, জুয়া, নিষিদ্ধ করেছেন। তিনিই ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

এইচ টি ইমাম বলেন, আলিয়া মাদ্রাসার যে পাঠ্যপুস্তুক আছে সেখানে মওদুদীবাদের আধিক্য আছে। আর এটিকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে পাঠ্যপস্তুকে সুফিবাদের অন্তভূক্ত করা প্রয়োজন।

পাকিস্তান সম্পর্কে ইমাম বলেন, আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ পাকিস্তানের জনগণ সারাদিন রোজ রাখে। আর যখন ইফতারের সময় হয় তখন পানি মুখে দিয়ে রোজা ভাঙ্গে এবং এর সাথে সাথে হুসকি টানা আরম্ভ করে।

তিনি বলেন, ইসলামের কথা বলে বাসে অগ্নি-সংযোগ করা, পেট্রোল-বোমা মেরে মানুষ হত্যা করে, দেশে জঙ্গিবাদের সৃষ্টি করে যারা তারা মুনাফিক ছাড়া আর কিছুই নয়। তারা দেশ, জাতি ও জনগণের শত্রু। আর এগুলো শুধু মুনাফিকেরই কাজ।

গণতান্ত্রিক ইসলামী ঐক্যজোটের সভাপতি মাওলানা মাসউদুর রহমান বিক্রমপুরীর সাভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, সাবেক স্বারাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ্যাভোকেট শামসুল হক টুকু, দৈনিক ইনকিলাবের সহকারী সম্পাদক মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী, বঙ্গবন্ধ শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ডা: মো: শরফুদ্দিন আহমদ প্রমুখ।