মেইন ম্যেনু

প্রধান শিক্ষককে হকিস্টিক দিয়ে পেটাল ইবি ছাত্রলীগ কর্মীরা

আওয়ামী লীগ নেতাদের মতামত না নিয়ে স্কুল পরিচালনা পর্ষদের কমিটি জমা দেওয়ায় এক প্রধান শিক্ষককে বেধড়ক পিটিয়েছে ইবি ছাত্রলীগ ও স্থানীয় যুবলীগের ক্যাডাররা। সোমবার সকালে স্কুলের উপর এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহত শিক্ষক শামসুল আলম সদর উপজেলার হাসানবাগ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। মারপিটের পর তাকে স্কুলে অবরুদ্ধ করে রেখে আপস করার জন্য চাপ দেন আওয়ামী লীগ নেতারা। এতে রাজি না হওয়ায় তাকে হুমকি-ধামকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

প্রধান শিক্ষক শামসুল আলম অভিযোগ করে বলেন, কয়েকদিন আগে তার স্কুলের পরিচালনা পর্ষদের নতুন কমিটি অনুমোদনের জন্য উপজেলায় জমা দেন। রোববার বিকেলে শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা মোবাইলে ফোন দিয়ে কমিটি গঠন করার সময় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাদের মতামত নেওয়া হয়েছিল কি-না জানতে চান। আমি তাকে বলি মতামত নেওয়া হয়নি। এ সময় তিনি আমাকে রাজাকার বলেন। আমি এর প্রতিবাদ করলে তিনি ফোন কেটে দেন। সোমবার সকালে সাদ্দাম হোসেন, জিল্লুর রহমান, আনিসসহ আরও ৩ থেকে ৪ জন স্কুলে এসে হকিস্টিক দিয়ে আমাকে পেটায়। তারা বলে, আতা ভাইয়ের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেছিস কেন? এই বলে মারতে থাকে। পরে স্থানীয় লোকজন এসে ঠেকায়।

স্থানীয় পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এএসআই আতিক বলেন, ঘটনা শুনে স্কুলে গিয়েছিলাম। ওসিসহ স্থানীয় নেতারা প্রধান শিক্ষককে নিয়ে মিটিং করছিল। প্রধান শিক্ষককে অপমান করা হয়েছে। মারপিটের কথা জানি না।

খবর পেয়ে ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় থানার ওসি শরিফুল ইসলাম বলেন, হাসানবাগ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামসুল আলমকে শারীরিকভাবে হেনস্থা করা হয়েছে। আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম।