মেইন ম্যেনু

প্রবল বাতাসের কারণেই ক্রেন দুর্ঘটনা ঘটেছে

শুক্রবার প্রবল বাতাসের কারণেই ক্রেন দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে বিশিষ্ট সৌদি বিজ্ঞানীরা। জেদ্দা ভিত্তিক কিং আব্দুল আজিজ ইউনিভার্সিটির (কেএইউ) ডিরেক্টর অব এক্সিলেন্স ফর ক্লাইমেট চেঞ্জ রিসার্চ অধ্যাপক মানসুর আলমাজরউ জানিয়েছেন, ‘ক্রেন ভেঙে পড়ার পেছনে প্রবল বাতাস ও বজ্রপাতই দায়ী।’

তিনি আরো জানিয়েছেন, ‘কিছু ভিডিও লক্ষ্য করলে দেখা যায় ক্রেন ভেঙে পড়ার আগে বিদ্যুৎ চমকাচ্ছিল।’

গণমাধ্যম এবং সামাজিক মাধ্যমে যে ভিডিওগুলো দেখানো হয়েছে সেখানে দেখা গেছে ক্রেন ভেঙে পড়ার সময় প্রবল বাতাস বয়ে যাচ্ছিল সেই সাথে ছিল বিদ্যুতের ঝলকানি। ক্রেনটি ভেঙে পড়ায় নিহত ও আহত হয়েছেন বহু মানুষ। সেসময় মসজিদ আল হারামের মেঝেতে হতাহতদের ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। ওই ঘটনা বর্ণনা করে মানসুর বলেন, ‘এটা সত্যিই খুব হৃদয়বিদারক দুর্ঘটনা ছিল।’
তিনি আরো জানিয়েছেন, ‘শুক্রবার বিকেল থেকেই আবহাওয়া কিছুটা খারাপ ছিল। হঠাৎ করে ৫টার ‍দিকে প্রবল বাতাস আর বজ্রপাত শুরু হয়। বাতাসের বেগ ছিল ঘণ্টায় ৬৫ কিলোমিটার।’

তিনি আরো বলেন, ‘বৃষ্টির কারণে আবহাওয়া কিছু সময়ের মধ্যেই ৪০ ডিগ্রি থেকে ২৫ ডিগ্রিতে নেমে গিয়েছিল।’ সামনের দিকেও মক্কাসহ বিভিন্ন এলাকায় আবহাওয়া খারাপ থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বৈরী আবহাওয়া আর বাতাসের কারণে ক্রেনটি ভেঙে পড়েছে বলে দাবি করছেন বিষেজ্ঞরা। তবে বিনলাদেন গ্রুপ সংস্কার কাজের ব্যাপারে একটু সচেতন হলেই হয়ত দুর্ঘটনা এড়ানো যেত। বেঁচে যেত বহু প্রাণ।