মেইন ম্যেনু

প্রশাসনে পদোন্নতি: সুপারিশ চূড়ান্ত আজ

নতুন করে সাড়ে ৬০০ ‘বঞ্চিত’ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেয়ার সুপারিশ চূড়ান্ত হচ্ছে বিকালে। আর এই তালিকা আগামী সোমবার মন্ত্রিসভা অনুমোদন দিলে ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তা প্রকাশ করা হবে।

শনিবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে সুপিরিয়র সিলেকশন বোর্ডের (এসএসবি) সভায় ‘বঞ্চিত’ কর্মকর্তাদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী বলেন, ‘আজ তালিকা চূড়ান্ত করবো আমরা। তবে কতজনকে নতুন পদোন্নতি দেয়া হবে তা বলা যাবে না’।

সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আকবর আলি খান ঢাকাটাইমসসকে বলেন, ‘বঞ্চিতদের অবশ্যই পদোন্নতি দিতে হবে, এটা তাঁদের অধিকার’। তবে পদোন্নতি দেয়ার ক্ষেত্রে যেন রাজনৈতিক যোগসাজসের চেয়ে কর্মদক্ষতাকেই প্রাধান্য দেয়া হয় তা নিশ্চিত করার তাগিদ দিয়েছেন আকবর আলি খান।

প্রশাসনে উচ্চস্তরে কর্মকর্তাদের সংখ্যা মধ্যম বা নিচের দিকের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ। এখন নতুন করে আরও সাড়ে ৬০০ ‘বঞ্চিত’ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেওয়ার প্রক্রিয়া প্রায় শেষ। ফলে জনপ্রশাসনের ওপরের স্তরে কর্মকর্তার সংখ্যা অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাচ্ছে। আবার নিচের স্তরের সিনিয়র সহকারী সচিব, সহকারী কমিশনার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রয়োজনের তুলনায় কর্মকর্তার পদে সংখ্যা কম। ফলে ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ছে জনপ্রশাসন।

ওপরের স্তরে কর্মকর্তার সংখ্যা বেশি হওয়ায় সচিবালয়ের বেশির ভাগ কক্ষে রয়েছে গাদাগাদি অবস্থা। বিশেষ করে যুগ্ম সচিব, উপসচিব ও সহকারী সচিবদের অনেকে আলাদা চেয়ার-টেবিল পেলেও একই কক্ষে বসতে বাধ্য হচ্ছেন। কক্ষ ভাগাভাগির ক্ষেত্রে কর্মকর্তার পছন্দের মূল্য সচরাচর থাকে না। যে কারণে অপরিচিত, জ্যেষ্ঠ বা কনিষ্ঠ অথবা ভিন্ন ক্যাডারের কর্মকর্তাকে একই কক্ষে দেওয়া হলে মনস্তাত্ত্বিক দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়।

প্রশাসনের অতিরিক্ত সচিব পদে ১৩০টি পদ থাকলেও বর্তমানে এ পদে কর্মকর্তা আছেন ২৬০ জন। তাদের মধ্যে ১০০ জনের মতো কর্মকর্তা আগের পদে কাজ করছেন। এবার ‘বঞ্চিত’ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

৪৩০টি যুগ্ম সচিব পদের বিপরীতে কর্মকর্তা আছেন ৯০৭ জন। এর মধ্যে প্রায় আড়াইশ কর্মকর্তা আগের পদে অর্থাৎ উপসচিব পদে কাজ করছেন।

৮৩০টি উপসচিব পদের বিপরীতে আছেন এক হাজার ৩১৩ জন। এই স্তরে প্রায় ৫০০ কর্মকর্তা অতিরিক্ত।

জনপ্রশাসনে অতিরিক্ত সচিব, যুগ্ম সচিব ও উপসচিব পদে এখন কর্মকর্তার সংখ্যা দুই হাজার ৫৭৩ জন। এই তিন স্তরে পদ আছে এক হাজার ৩৬৭টি। অর্থাৎ এখনই পদের চেয়ে বেশি আছেন এক হাজার ২০৬ জন। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এখন এই তিন পদে আরও প্রায় ৫০০ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দিতে যাচ্ছে। এর ফলে পদ না থাকলেও পদোন্নতি পেয়ে আগের দায়িত্বে থাকবেন এক হাজার ৬৫৬ জন কর্মকর্তা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনপ্রশাসনের এক অতিরিক্ত সচিব বলেন, ২০০৯ সালে প্রশাসনে অতিরিক্ত সচিব ছিলেন ১৬৬ জন, বর্তমানে ওই পদে কর্মরত আছেন ৩৮৩ জন। এখন আবার পদোন্নতি দেওয়া হলে তা হবে প্রায় ৫০০। একইভাবে যুগ্ম সচিব পদে ২০০৯ সালের নভেম্বরে কর্মরত ছিলেন ৩৯৭ জন, এখন কর্মরত আছেন ৮৯০। আবার পদোন্নতি দেওয়া হলে তা হবে প্রায় ১ হাজার ৫০ জন।