মেইন ম্যেনু

প্রশ্ন ফাঁস দুষ্টু লোকের দুষ্টুমি: মন্ত্রী

প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনাকে দুষ্টু লোকের দুষ্টুমি বলে মনে করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান। তবে প্রশ্ন ফাঁস রোধে মন্ত্রণালয় কঠিন ও কৌশলী পদক্ষেপের কথাও জানান তিনি।

রোববার শুরু হওয়া প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষার মতিঝিল সরকারি আইডিয়াল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেন্দ্র পরিদর্শনে এসে গণমাধ্যমকর্মীদের সামনে এমন কথা তুলে ধরেন মন্ত্রী। পরীক্ষার্থীদের মনোযোগে যাতে ব্যাঘাত না ঘটে সে কারণে পরীক্ষার হলে অবশ্য প্রবেশ করেননি মন্ত্রী। স্কুলটির সামনে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপ করেন তিনি।

মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, কিছু দুষ্ট মানুষের দুষ্টবুদ্ধির কারণে প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা ঘটেছিল। তাদের দুষ্টবুদ্ধি অকার্যকর করতে এবার ৮টি প্রশ্নের সেট তৈরি এবং সেগুলো সুকৌশলে ৮টি ভাগে ভাগ করে বিতরণ করা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘দেশে রাজনৈতিক কোনো অস্থিরতা নেই, শান্তিপূর্ণভাবে পরীক্ষা চলছে। হরতালে কিছু দুষ্ট লোক ছোটখাটো ঝামেলা করলে সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। তাই আগামীকালের পরীক্ষা পিছিয়ে ৩০ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে।’

হরতালের মধ্যে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে কি না এ নিয়ে অভিভাবকদের মনে কিছুটা উদ্বেগ কাজ করলেও প্রশ্নফাঁস বা অন্য কোনো অভিযোগ নেই বলে জানিয়েছেন গণশিক্ষামন্ত্রী।

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা উপলক্ষে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে, নিয়ন্ত্রণ কক্ষের নম্বর- ৯৫১৫৯৭৭ এবং ৫৫০৭৪৯৩৯।

উল্লেখ্য, আজ থেকে শুরু হয়েছে পিএসসি পরীক্ষা। পূর্বের সূচি অনুযায়ী ২৯ নভেম্বর পরীক্ষা শেষ হওয়ার কথা থাকলেও সূচিতে পরিবর্তন আসায় এখন তা শেষ হচ্ছে ৩০ নভেম্বর। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, এবারের পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ২৯ লাখ ৪৯ হাজার ৬৩ জন শিক্ষার্থী।

পরীক্ষার বিস্তারিত সময়সূচি
প্রাথমিক সমাপনীতে ২২ নভেম্বর ইংরেজি, ২৩ নভেম্বর বাংলা, ২৪ নভেম্বর বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়, ২৫ নভেম্বর প্রাথমিক বিজ্ঞান, ২৬ নভেম্বর ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা ও ২৯ নভেম্বর গণিত পরীক্ষা হবে।

ইবতেদায়ী সমাপনীতে ২২ নভেম্বর ইংরেজি, ২৩ নভেম্বর বাংলা, ২৪ নভেম্বর পরিবেশ পরিচিতি সমাজ ও পরিবেশ পরিচিতি বিজ্ঞান, ২৫ নভেম্বর আরবি, ২৬ নভেম্বর কোরআন ও তাজবিদ এবং আকাঈদ ও ফিকহ, ২৯ নভেম্বর গণিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।