মেইন ম্যেনু

প্রস্তুত হচ্ছে জাতীয় ঈদগাহ ময়দান

ঈদ-উল-ফিতরের বাকি আর মাত্র কয়েক দিন।আর ঈদের মূল আকর্ষণই হচ্ছে ঈদের নামাজ।কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ার পর সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত হয়ে থাকে ঢাকার জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে।রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রিসভার সদস্যগণ,ঢাকার দুই মেয়র থেকে শুরু করে দেশের গণ্যমান্য ব্যক্তিগর্ব সবাই জাতীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করে থাকেন। তাই প্রস্তুতিটাও বিশাল।এরই মধ্যে নামাজ আদায়ের জন্য জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে বিশাল প্যান্ডেলের প্রস্তুতি প্রায় শেষ করে এনেছে।বৃষ্টি হতে পারে এমনটা মাথায় নিয়েই দেড় লাখ মুসল্লির জন্য দুই লাখ ৬০ হাজার বর্গফুটের প্যান্ডেল নির্মাণের কাজ করা হচ্ছে।

প্যান্ডেলের বাঁশের খুটি স্থাপন শেষে ত্রিপলের ছামিয়ানা টাঙ্গানোর কাজ করা হচ্ছে।শেষ করা হয়েছে যাবতীয় রঙের কাজও।২৭ রমজানের আগেই ঈদগাহ ময়দানের যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করা হবে বলে জানিয়েছেন ঈদগাহ মাঠ প্রস্তুতের জন্য নিযুক্ত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান পিয়ারু সর্দার অ্যান্ড সন্সের ব্যবস্থাপক মো. মোজাম্মেল হক।

তিনি জানান, মাঠ প্রস্তুতের কাজ প্রায় শেষের দিকে।বাকি কাজটুকু আগামী ২৭ রমজানের আগেই শেষ হয়ে যাবে।মাঠের বৃষ্টি প্রতিরোধক ত্রিপল দিয়ে ছামিয়ানা টাঙ্গানো হচ্ছে। মহিলাদের জন্য থাকছে বিশেষ ব্যবস্থা। মাঠে প্রবেশের জন্য তিনটি বোর্ডের গেট নির্মাণের কাজও প্রায় শেষ পর্যায়ে।যার মধ্যে একটি গেট মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত থাকবে।

প্রতিবারের চেয়ে এবার অতিরিক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি জানান,রাষ্ট্রপতির জন্য একটি কুলিং মেশিনের ব্যাবস্থা রাখা ছাড়াও মাঠে ৭০০টি ফ্যান থাকবে। এর মধ্যে ৬০০ সিলিং ও ১০০টি স্ট্যান্ড ফ্যান রয়েছে। লাইট থাকবে ৪৫০টি। ১৪০টি ওজু খানার ব্যব্স্থা থাকছে। থাকবে কয়েকটি ভ্রাম্যমাণ শৌচাগারও।

তিনি জানান, ভিআইপিদের জন্য ১১ হাজার বর্গফুট জুড়ে লালগালিচা বসানো হবে।প্যান্ডেলের বাকি জায়গায় ম্যাটের ওপর সাদা কাপড় বিছানো হবে।

বৃষ্টিতে যাতে নামাজের কোনো ব্যঘাত না হয় সে জন্যও বিশেষ ব্যবস্থা থাকবে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বৃষ্টি নিরোধক ত্রিপল দিয়ে ছামিয়ানা টাঙ্গানো হচ্ছে। এছাড়া মাঠে দ্রুত পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেনেজ ব্যবস্থা আছে।এজন্য বৃষ্টি হলেও কোন সমস্যা হবে না।

তিনি জানান, এবার বোর্ড দিয়ে তিনটি গেট করা হচ্ছে। সাধারণ মানুষের প্রবেশের জন্য প্রধান গেট ছাড়াও রাষ্ট্রপতি ও ভিআইপিদের জন্য একটি গেট করা হবে। মহিলাদের জন্য আলাদা একটি গেট করা হচ্ছে।

এদিকে মাঠের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থার জন্য ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা (সিসি) বসানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মাঠে গিয়ে দেখা যায়, শ্রমিকরা প্যান্ডেলের ওপর দিয়ে ত্রিপলের ছামিয়ানা টাঙ্গাচ্ছেন এবং একাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। মাঠের উঁচু-নিচু জায়গা বালু দিয়ে ভরাট করা হচ্ছে। ঈদগাহ মাঠের দেওয়ালসহ চারপাশের গাছে রঙ করা হয়েছে।

প্রতি বছরের মত এবারও জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল সাড়ে ৮টায় হবে ঈদের প্রধান জামাত।তবে আবহাওয়া প্রতিকূল হলে প্রধান জামাত সকাল ৯টায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে। বায়তুল মোকাররম মসজিদের খতিব মাওলানা সালাউদ্দিন অসুস্থ থাকায় এবারের ঈদের জামাতের ইমামতি করবেন চট্টগ্রাম জামিয়াতুল ফালাহ মসজিদের খতিব মাওলানা জালাল উদ্দিন আল কাদেরী।