মেইন ম্যেনু

প্রাচীনতম বড়শির সন্ধান জাপানের গুহায়

ওকিনওয়া নামে জাপানের একটি দ্বীপের গুহায় প্রত্নতত্ত্ববিদরা দুটি বড়শি পেয়েছেন, যেগুলোকে বিশ্বের প্রাচীনতম বড়শি বলে মনে করছেন তারা।

একটি গবেষণাপত্র অনুযায়ী বড়শি দুটি প্রায় ২৩ হাজার বছরের পুরোনো এবং এগুলো সামুদ্রিক শামুকের খোলস কেটে তৈরি করা। বড়শি দুটির পাশাপাশি আরো কিছু ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে।

আজ থেকে প্রায় ৩০ হাজার বছর আগে মানুষ ওই দ্বীবে বাস করা শুরু করেন বলে মনে করা হয়। অবশ্য দ্বীপটিতে খাবার যোগার করা মানুষের জন্য কষ্টসাধ্য কাজ ছিল।

সমুদ্রতীরবর্তী মানুষ সমুদ্র থেকে খাদ্য সংগ্রহের জন্য কী ব্যবহার করতেন, সে সম্পর্কে আগে যে ধারণা ছিল এই বড়শি দুটি আবিষ্কারের মধ্যে দিয়ে তাতে পরিবর্তন এল।

মোটামুটি ৫০ হাজার বছর আগে উপকূলীয় এলাকায় বসবাস শুরু করে মানুষ।

সারা পৃথিবীতে মানুষের ছড়িয়ে পড়ার পেছনে মাছ শিকারের গুরুত্বপূর্ণ একটা ভূমিকা থাকলেও কখন-কিভাবে মানুষ মাছ শিকার করেছে সে বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু জানা যায়নি। ইন্দোনেশিয়া, পাপুয়া নিউ গিনির মতো অঞ্চল থেকে এ সম্পর্কে খুব বেশি কোনো তথ্য পাওয়া যায় না।

ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্স মনে করছে, নতুন এই আবিষ্কারের ফলে বিশাল একটা অঞ্চলে মাছ ধরতে কেমন প্রযুক্তি ব্যবহৃত হতো সে সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যাবে।

এরআগে তিমরে যে প্রাচীন বড়শির সন্ধান মিলেছিল সেটি ১৬ হাজার ও পাপুয়া নিউ গিনিতে যে বড়শির সন্ধান মিলেছিল সেটি ১৮ হাজার বছরের প্রাচীন বলে মনে করা হয়।