মেইন ম্যেনু

প্রাণিজগতে নতুন অতিথির সন্ধান দিলেন বেলাল হোসেন

প্রাণিজগতের নতুন আরেক অতিথির সন্ধান দিলেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) মৎস্য ও সামুদ্রিক বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. বেলাল হোসেন। দেশের গন্ডি পেরিয়ে এবার ব্রুনাই সমুদ্র এলাকা থেকে victoriopisa bruneiensis নামে আরও একটি অমেরুদণ্ডী প্রাণিকে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন তিনি। প্রজাতিটির সংগ্রহের স্থান ব্রুনাই এর নামানুসারে এর নামকরণ করা হয়।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চল থেকে Nephtys bangladeshi নামে পলিকীটের নতুন প্রজাতির সন্ধানদাতাও তিনি।

প্রাণী জগতের আর্থোপোডা পর্বের amphipoda বর্গের অন্তর্গত ও victoriopisa গণভূক্ত আবিষ্কৃত প্রজাতিটি দেখতে চিংড়ি সদৃশ। স্বচ্ছ বর্নের এই ক্ষুদ্র প্রজাতিটি দৈর্ঘে ১০.৮ মিমি। অন্যান্য amphipods এর মতো তিন খণ্ডে বিভক্ত দেহের দুই পার্শ্বে চৌদ্দ জোড়া হাঁটার পা (walking legs) আছে। যা হাঁটা ছাড়াও সন্তরণ, খাবার সংগ্রহ ও অন্যান্য জৈবিক কাজে ব্যবহৃত হয়। প্রজাতিটি ব্রুনাই নদীর মোহনা থেকে কৌশলে সংগ্রহ করা হয়। উপকূলীয় জলাশয়ের খাদ্যচক্রে এরা অন্যতম উপাদান।

ওয়ার্ল্ড রেজিস্টার ফর মেরিন স্পেসিসের (WORMS) তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজার এমফিপোডস (amphipods) আবিষ্কৃত হয়েছে। তবে এই প্রজাতির আগে Victoriopisa গণভূক্ত মাত্র তিনটি প্রজাতি ছিল।

ড. বেলাল জানান, ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়ান মিউজিয়াম রিসার্চ ইনস্টিটউটে পোস্টডক্টরাল গবেষণাকালীন এমফিপোদ ট্যাক্সনোমিস্ট ড. লাউরেন হিউজেসসহ এই নতুন প্রজাতিটি শনাক্ত করেন।

ড. বেলাল হোসেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মৎস ও সামুদ্রিক বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম থানার কেন্দুয়া গ্রামের মৃত আব্দুস সোবহান ভূঁইয়া ও দেলোয়ারা বেগমের ছেলে। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মেরিন সাইন্স বিভাগে স্নাতক, যুক্তরাজ্যের হাল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স এবং ব্রুনাই দারুস সালাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ান মিউজিয়াম রিসার্চ ইনস্টিটিউট থেকে পোস্ট ডক্টোরাল গবেষণা সম্পন্ন করেন তিনি।