মেইন ম্যেনু

প্রাণে বাঁচতে শৌচাগারে লুকিয়ে পড়েছিল শ্রীনু!

তৃণমূল অফিসে দুষ্কৃতী হামলার পর, শৌচাগারে লুকিয়ে বাঁচতে চেয়েছিল শ্রীনু নায়ডু। কিন্তু দরজা ভেঙে ঢুকে পর পর গুলি করে আততায়ীরা। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, বুধবার বিকেলে এখানে একটি এমইউভি এসে দাঁড়ায়। গাড়ি থামতেই, নেমে আসে বন্দুকধারী ৩ দুষ্কৃতী! সেইসময় তৃণমূল অফিসের মধ্যেই ৪ অনুগামীকে নিয়ে বসেছিল শ্রীনু। কিছু বুঝে ওঠার আগেই পরপর ৪টি বোমা ফাটায় দুষ্কৃতীরা! তারপরই টার্গেট ডন শ্রীনু!

শ্যুটআউটে আহত শ্রীনু নায়ডুর সহযোগী গোবিন্দ রাও বলেছে, বোমা ফাটাল, ধোঁয়ায় ঢেকে গেল। আমি আর শ্রীনু বাথরুমে যাই। দরজা ধাক্কা দিয়ে ঢুকল। গুলি করল। আমরা লুটিয়ে পড়লাম। বললাম মারছ কেন? শোনেনি। আমি মরে যাওয়ার ভান করি, ওরা চলে যায়। কিন্তু কারা তারা? কী বলছে শেষ মুহূর্তে শ্রীনুর সঙ্গীরা? মৃত ডনের ঘনিষ্ঠ সি শ্রীনু জানিয়েছে, যারা এসেছিল চিনতে পারিনি। মুখ ঢাকা ছিল, বোমা-গুলি করে পালিয়ে যায়।

এই ঘটনায় শ্রীনুর পাশাপাশি, তার ডান হাত বলে পরিচিত ভি ধর্মারও মৃত্যু হয়েছে। আহত দুই শ্রীনু-সহযোগী গোবিন্দ রাও এবং সি শ্রীনুকে বুধবার রাতে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার অস্ত্রোপচার করে দু’জনের দেহ থেকে দুটি বুলেট বের করেন চিকিৎসকরা। এনআরএসে ময়নাতদন্ত হয় শ্রীনুর দেহের। সূত্রের খবর, শুক্রবার ডনের দেহ নিয়ে এলাকায় মিছিল করার পরিকল্পনা রয়েছে অনুগামীদের! যা শুনে প্রমাদ গুণছে খড়গপুর!-এবিপি আনন্দ