মেইন ম্যেনু

জি-৭ বৈঠক

প্রাধান্য পাচ্ছে জলবায়ু ও সন্ত্রাস

জার্মানিতে চলছে বিশ্বের সাত অন্যতম অর্থনৈতিক শক্তিসম্পন্ন দেশের সমন্বয়ে গঠিত সংগঠন জি-৭ এর সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন।

বৈঠকে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা রয়েছেন তো বটেই, আরও রয়েছেন মার্কিন রাষ্ট্রপ্রধান বারাক ওবামা, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে, ফরাসি রাষ্ট্রপ্রধান ফ্রাঁসোয়া ওঁলাদ, কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হার্পার এবং ইতালির প্রধানমন্ত্রী মাত্তেও রেনজি।

দ্বিতীয় দিনের বৈঠকে প্রাধান্য পেতে পারে পরিবেশ সংক্রান্ত নীতিমালা প্রণয়ন এবং বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসী হামলার প্রভাববিস্তার রোধ করণীয়।

জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল বৈঠকের দ্বিতীয় দিনে বিশ্বের গড় তাপমাত্রা পরিমিত পর্যায়ে কমিয়ে আনার জন্যে প্রয়োজনীয় উদ্যোগসমূহ প্রস্তাব করবেন।

G 7 Summit in Baveria

পরিবেশসংক্রান্ত সিদ্ধান্ত ও অনুসিদ্ধান্ত গ্রহণের অংশ হিসেবে তিনি আরও প্রস্তাব করবেন অনুন্নত দেশগুলোর মধ্যে যারা পরিবেশের বিরূপ প্রভাবের শিকার হচ্ছে তাদের আর্থিক সহায়তা প্রদানের প্রস্তাবনা।

জি-৭ সম্মেলনে শিগগিরই আরও যোগদান করবেন ইরাকি প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল এবাদি, নাইজেরিয়ার রাষ্ট্রপ্রধান মুহাম্মাদু বুহারি, তিউনিসিয়ার রাষ্ট্রপ্রধান বাজি কায়েদ আল সাবসি।

তাদের উপস্থিতিতে ইসলামিক স্টেট এবং বোকো হারাম সমস্যা নিরসনে আশু উদ্যোগ কী হতে পারে তা আলোচিত হবে।

জার্মানির  ব্যাভারিয়া প্রদেশের আল্পস পর্বতামালার পাদভূমিতে নান্দনিক পিকচারেস্ক শ্লস আলমো হোটেলে এ সম্মেলনের জন্যে মিলিত হয়েছেন নেতারা।