মেইন ম্যেনু

প্রিন্টারে কগজ নয় পাবেন খাবার!

স্পেনের বার্সেলেনায় অনুষ্ঠিত মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে (এমডব্লিউসি) ফোনের পাশাপাশি বিভিন্ন গ্যাজেট উপস্থাপন করা হয়েছে। এদের মধ্যে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে থ্রিডি ফুড প্রিন্টার। এই ফুড প্রিন্টারটি ‘ফুড সিনথেসিজারের’ মতো নয়। তবে এটি তৃতীয় প্রজন্মের একটি প্রিন্টার। এটি উদ্ভাবন করেছে ন্যাচারাল মেশিন নামের একটি প্রতিষ্ঠান। ফুড প্রিন্টারটির নাম দিয়েছে ফুডিনি।

প্রতিষ্ঠানটির লিনেট কুশমা বলেন, ‘আমাদের এই প্রিন্টারটি আগের ফুড সিনথেসিজারের মতো নয়। এই মেশিন দিয়ে আপনি খাদ্য উৎপাদনকারী হতে পারবেন। নজেলের সাহায্যে পুরো খাদ্যের ডিজাইন তৈরি করতে পারবেন আপনি এই প্রিন্টার দিয়ে। রাভিয়লি, ক্র্যাকার্স অথবা চিকেন নাগেটের মতো খাদ্য বানাতে পারবেন অনায়াসে। মজার বিষয় হল এই মেশিনে আপনি হ্যামবার্গারের মতো কঠিন প্রক্রিয়ায় বানানো খাদ্যও বানাতে পারবেন।’

তবে কিভাবে নজেলের সাহায্যে হ্যামবার্গার উৎপাদন হবে তা পুরোপুরি পরিস্কার করেনি প্রতিষ্ঠানটি। এই মেশিনের সাহায্যে আপনি প্রাকৃতিক উপাদান গুলো দিয়ে স্বাস্থ্যকর খাদ্য বানাতে পারবেন। কৃত্রিমভাবে সংরক্ষণ করে রাখা খাদ্যের চেয়ে এই মেশিনে বানানো খাবার স্বাদের দিক থেকেও উন্নতমানের খাদ্য প্রস্তুত করতে সক্ষম।

অন্যান্য ডিভাইসের সাথে সংযু্ক্ত করে এই প্রিন্টার দিয়ে খাদ্য বানানোর প্রক্রিয়াও প্রিন্ট করা যাবে। পৃথিবীর অন্য প্রান্তে থাকা যেকোনো শেফের খাদ্য বানানোর প্রক্রিয়াও আপনি এ মেশিনের সাহায্যে জানতে পারবেন।

বার্সেলোনাতে প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠানটি এই থ্রিডি প্রিন্টারটি তৈরি করেছে পেশাদার শেফদের জন্য। তবে শিগগিরই সাধারণ ব্যবহারের উপযোগী করে এই প্রিন্টার তৈরি করবে বলেই জানিয়েছে কুশমা। ফুডিনির মূল্য ১৫০০ থেকে ২০০০ ডলার পর্যন্ত হতে পারে।