মেইন ম্যেনু

প্রেমিকাকে ইয়াবা দিয়ে পুলিশে ধরিয়ে দিলেন প্রেমিক!

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার নব-গঠিত বাঙ্গরা বাজার থানাধীন টনকী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য ও প্রেমিক রাশেদুল ইসলাম বিয়ে করা থেকে বাঁচতে তার প্রেমিকা বাইড়া গ্রামের রোজিনা(২২) নামের এক যুবতী ও তার মা নাছিমা বেগম(৪৫) কে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ঘরে ইয়াবা দিয়ে ব্যবসায়ী বানিয়ে পুলিশে গ্রেফতার করানোর অভিযোগ উঠেছে।

আটককৃতরা বাইড়া গ্রামের মৃত আহাম্মদ আলী মেয়ে ও স্ত্রী। প্রতারক প্রেমিক টনকী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বাইড়া গ্রামের নব-নির্বাচিত মেম্বার ও মৃত মনু মিয়া মেম্বারের ছেলে রাশেদুল ইসলাম।

এদিকে হত-দরিদ্র নীরিহ এই পরিবারের উপর জুলুম ও নির্যাতনের ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ও চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে রোজিনার সাথে রাশেদের প্রেমের সর্ম্পক চলছিল। সেই সুবাদে রাশেদ রোজিনাদের বাড়িতে আসা-যাওয়া করতো। তাকে নিয়ে বিভিন্ন স্থানে বেড়াতে যেত। রোজিনা ও তার পরিবারের সদস্যরা বিয়ের জন্য রাশেদকে সে বিভিন্ন ভাবে এড়িয়ে চলে। রাশেদ মেম্বার হওয়ার পর বিয়ের জন্য রুজিনা চাপসৃষ্টি করলে তাতে সে ক্ষিপ্ত হয়। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ভাবে শেষ করার চেষ্ঠা করলে রাশেদ কিছু দিনের সময় নেয়। সেই সময় শেষ হওয়ার আগেই সোমবার রাতে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে রোজিনাদের ঘরে ইয়াবা দিয়ে পুলিশ এনে মা-মেয়েকে ধরিয়ে দিয়েছেন মেম্বার রাশেদ।

এদিকে বাঙ্গরা বাজার থানা গঠনের পর থেকে বিভিন্ন সময় চক্রান্তকারী লোকদের সাথে পুলিশ সদস্যরা এক হয়ে সাধারন লোকদের ফাসানোর অভিযোগও উঠেছে নব-গঠিত বাঙ্গরা বাজার থানার বিরুদ্ধে। যাতে করে পুলিশের সম্মান ক্ষুন্ন হচ্ছে। পুলিশের এ ধরনের কাজকে তদন্ত করে বের করার জন্য উর্ধতন কতৃপক্ষের কাছে দাবী জানিয়েছেন এলাকা বাসী।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য রাশেদুল ইসলাম সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তাদেরকে গ্রেফতারের পরদিন আমি বিষয়টি শুনেছি, রোজিনার সাথে আমার কোন প্রেমের সর্ম্পক নেই।

এ বিষয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, ‘প্রাথমিক ভাবে জানতে পেরেছি মেম্বার রাশেদের সাথে আটককৃত রুজিনার সম্পর্ক আছে। তবে যেহেতু তাদের ঘরের তোসকের নিচে এস,আই জসিমের নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২২টি ইয়াবা পেয়েছে, সেহেতু তাদের বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য আইনে মামলা করে মঙ্গলবার দুপুরে কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেররণ করা হয়েছে।