মেইন ম্যেনু

প্রেমিকার টুপি ও প্রেমিকপুরুষের বাজি

কথায় আছে প্রেম মানে না কোনো বাধা। আর প্রেমিকাকে খুশি করতে জীবন বাজি রেখে সেই কথাটা আরেকবার প্রমাণ করে ছাড়লেন এক প্রেমিক। প্রেমিকার পছন্দের টুপি বলে কথা। বাতাস এসে যেইনা মাথা থেকে ছুঁ মেরে টুপিটা উড়িয়ে নিলো অমনি সেটি উদ্ধারে প্রেমিক পুরুষটি ঝাঁপিয়ে পড়লেন পাহাড়ের গায়ে। এ থেকেই বোঝা যায় প্রেমাসম্পদের খুশির জন্য সবকিছুই করতে পারেন একজন প্রেমিক। সম্প্রতি তেমনি এক ঘটনা ঘটল চীনে।

ভ্যালেন্টাইনস ডে চলে গেছে। কিন্তু তার রেশ যেন থেকে গেছে প্রেমিক প্রেমিকাদের মাঝে। তারই রেশ ধরে এক প্রেমিকযুগল দেশটির জিনজি পাহাড়ে ঘুরতে গিয়েছিল। আর সেই সময়টাতে প্রকৃতিতে খুব জোরে হাওয়া বইছিল। যাকে বলে প্রেমের জন্য একেবারে মনোরম পরিবেশ। কিন্তু বিপত্তিটা ঘটল তখনি। প্রেমিকার মাথা থেকে তার পছন্দের টুপিটা উড়িয়ে নিলো দুষ্টু বাতাস। পছন্দের টুপিটা পড়ে যাওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে মন খারাপ হয়ে যায় প্রেমিকার। প্রেমিকাকে মন খারাপ দেখে নিজেকে আর ধরে রাখতে পারলেন না প্রেমিক মহাশয়। তখনই সুপারম্যানের মতো নিজের জীবন বাজি রেখে লাফিয়ে পাহাড়ের গায়ে নেমে যান তিনি। হইহই করে ওঠেন চারপাশের মানুষজন। অনেকেই বাধা দিতে যান। কিন্তু প্রেম মানে না কোনো বাধা। সবার বাধা উপেক্ষা করে পাহাড়ের গা থেকে টুপি তুলে এনে পরিয়ে দিলেন প্রেমিকার মাথায়। পছন্দের টুপিটা ফিরে পেয়ে খুশিতে প্রেমিকাও আর নিজেকে আটকে রাখতে পারলেন না। বুকে জড়িয়ে ধরলেন তার প্রেমিককে। সবার মুগ্ধ দৃষ্টি তখন আলিঙ্গনাবদ্ধ প্রেমিকযুগলের ওপর গিয়ে পড়ে।

যদিও জিনজি মাউন্টেন ন্যাশনাল পার্কের কর্মীরা এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, ছেলেটি টুপি তোলার জন্য যা করেছেন তা খুবই বিপজ্জনক। যদি তিনি পাহাড়ের গা থেকে পা পিছলে একবার পড়ে যেতেন তাহলে মারাত্মক বিপদ হতে পারত। তিনি ১ হাজার ৬৪০ ফুট নিচে পাহাড়ি এলাকায় পড়ে যেতেন। তাই এই ঘটনা মোটেই প্রশংসনীয় নয়। কেউ যেন তাকে নকল না করেন।



(পরের সংবাদ) »