মেইন ম্যেনু

প্রেমিকের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে প্রেমিকা গণধর্ষণের শিকার

রাজধানীর লালবাগে প্রেমিকের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গণধর্ষণের শিকার হলো নবম শ্রেণীর এক ছাত্রী। বুধবার সকালে ওই কিশোরী ও তার প্রেমিক লালবাগ থানায় এসে ‘ধর্ষণকারীদের’ বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। এ ঘটনায় রানা (২৪) নামের একজন আটক করা হয়েছে।

গণধর্ষণের শিকার মেয়েটির বরাত দিয়ে পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রেমিক সুজনের সঙ্গে লালবাগ বেড়িবাঁধ এলাকায় বেড়াতে যায় মেয়েটি। সেখান থেকে কামরাঙ্গীর চরে সুজনের বন্ধু মিনহাজের বাসায় বেড়াতে যায় তারা। সেখান থেকে ফেরার পথে রাত ১১টার দিকে শহীদ নগর এলাকায় মেয়েটিকে দাঁড় করিয়ে রেখে পানি খেতে যায় সুজন। ফিরে এসে দেখে মেয়েটি সেখানে নেই। পরে টহল পুলিশের সহায়তায় ওই এলাকার একটি বাসা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। মেয়েটির অভিযোগ, তিনজন যুবক আটকে রেখে তাকে ধর্ষণ করেছে।

পুলিশ আরো জানায়, বুধবার সকালে মেয়েটি ও তার প্রেমিক সুজন সকালে থানায় এসে অভিযোগ করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে রানা (২৪) নামের এক যুবককে আটক করে। অন্য ধর্ষকরা এখন পলাতক।

জানা গেছে, দীর্ঘ তিন বছর ধরে সুজনের সঙ্গে মেয়েটির প্রেম। সুজন পেশায় লেগুনাচালক। আর মেয়েটি মিরপুর দারুসসালামের একটি স্কুলে নবম শ্রেণীতে পড়ে। থাকে একটি মেসে। তার গ্রামের বাড়ি বরিশালে।

এ ঘটনায় প্রেমিক সুজন পুলিশ হেফাজতে থাকলেও তাকে এখনো আটক দেখানো হয়নি।

সুজন জানিয়েছে, মেয়েটিকে নিয়ে গতকাল লালবাগে বেড়াতে গিয়েছিলেন। বন্ধুর বাসা থেকে ফেরার পথে রাতে শহীদ নগর এলাকায় মেয়েটিকে দাঁড় করিয়ে রেখে পাশের একটি দোকানে পানি খেতে যান। ফিরে এসে দেখেন মেয়েটি সেখানে নেই। পরে টহল পুলিশের সহায়তায় মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়।

লালবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়েছে। মেডিকেল পরীক্ষার জন্য তরুণীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মেডিকেল পরীক্ষায় ঘটনার আলামত মিললে মামলা রুজু হবে।